বারিধারার আলোচিত বৈঠক নিয়ে নানা গুঞ্জন

0
77
Print Friendly, PDF & Email

বিকল্পধারা বাংলাদেশের চেয়ারম্যান অধ্যাপক বদরুদ্দোজা চৌধুরীর বারিধারার বাসায় বৈঠক করেছেন জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান এইচএম এরশাদ, কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সভাপতি কাদের সিদ্দিকী বীরউত্তম ও জেএসডি সভাপতি আসম আবদুর রব।

বুধবার রাত ৮টা থেকে ১০টা পর্যন্ত প্রায় দুইঘণ্টা এই বৈঠক হয়। বৈঠকের পর নেতারা সংক্ষিপ্ত প্রতিক্রিয়া দিলেও বৈঠকের বিষয়ে বিস্তারিত কিছু জানানো হয়নি।

তাদের দাবি, চলমান রাজনৈতিক প্রেক্ষাপটে দুই জোটের বাইরে বিকল্প জোট গঠন, নির্বাচনকালীন সরকার নিয়ে চলমান অচলাবস্থা কাটানোর উদ্যোগ এবং নির্বাচন পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনা হয়েছে।

তবে সরকারের পক্ষ থেকে নির্বাচন উদ্যোগের বিপরীতে মহাজোটের শরিক নেতার সঙ্গে বিরোধী দল ঘনিষ্ট নেতাদের এ বৈঠককে গুরুত্বপূর্ণ মনে করছেন রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা। এ নিয়ে নানা গুঞ্জন ছড়িয়ে পড়েছে।

একটি সূত্রে জানা গেছে, আগামী শুক্রবার টাঙ্গাইলের বাসাইলে কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সভায় জাতীয় নেতারা অংশ নেবেন। সেখান থেকে গুরুত্বপূর্ণ ঘোষণা আসতে পারে। ওই বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয়ার জন্যই নেতারা গতকাল বৈঠক করেন।

তবে নির্বাচন নিয়ে দেশে একটি রুদ্ধশ্বাস পরিস্থিতিতে এই বৈঠক নিয়ে গুজব আর গুঞ্জনের ডালপালা এখানে থেমে নেই। একটি অংশের মতে, এরশাদকে দিয়ে বিকল্প জোট গঠনের মাধ্যমে বিকল্পধারা, কৃষক শ্রমিক জনতা লীগ এবং জেএসডি-কে বিরোধী দলবিহীন নির্বাচনে নিতে চায় সরকার। এটিও সেই চেষ্টারই অংশ।

সর্বদলীয় সরকারে জাতীয় পার্টির অংশগ্রহণ এবং আর প্রধান বিরোধী দলবিহীন নির্বাচনে অংশগ্রহণে এরশাদের ওপর আওয়ামী লীগ এবং পার্শ্ববর্তী একটি দেশের প্রবল চাপে আছে। শেষ পর্যন্ত তিনি মহাজোটের ছকে হাঁটবেন এমন বিশ্বাস ক্ষমতাসীন শিবিরে।

ইতোমধ্যে ১৮ দলীয় জোটের অন্যতম শরিক কর্নেল (অব.) অলি আহমেদের এলডিপি-কে সর্বদলীয় সরকারে আসার প্রস্তাব দিয়েছে সরকার। এরপর থেকেই অনেকটা নিশ্চুপ হয়ে গেছেন একসময়ে মহাজোট সরকারের বিরুদ্ধে সোচ্চার কণ্ঠ অলি।

শেয়ার করুন