ঢাকা মেডিকেলের চিকিৎসকের লিঙ্গ কর্তন

0
126
Print Friendly, PDF & Email

পরকিয়ার জের ধরে ঢাকা মেডিকেল কলেজের বার্ণ ইউনিটের ডা. আল আমিনের লিঙ্গ কর্তন করেছে দুর্বৃত্তরা। আহত অবস্থায় ডা. আল আমিনকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার সকাল পৌনে ৯টার দিকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের পিছনে পরীবাগ পাওয়ার হাউজ এলাকা থেকে ডা. আল আমিনকে সাদা রঙের একটি মাইক্রোবাসে করে অপহরণ করে নিয়ে যায়। বিকাল ৫টার দিকে রক্তাক্ত অবস্থায় একটি রিকশা করে ডা. আল আমিন হাতিরপুলের ৩৭৬, ফ্রি স্কুল স্ট্রীটের বাসায় ফিরেন। এরপরই তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

শাহবাগ থানার ওসি (তদন্ত) আব্দুল জলিল জানান, ডা. আল আমিন ঢাকা মেডিকেল কলেজের বার্ণ ইউনিটের চিকিৎসক। তিনি নিউরোলজির ওপর এমএস কোর্স সম্পন্নের জন্য বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশুনা করছেন। এর আগে ডা. আল আমিন পুরান ঢাকার ন্যাশনাল মেডিকেল কলেজে এমবিবিএস পড়াশুনা করার সময় তার সহপাঠী ডা. সিফাত আরা নার্গিসের সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক ছিল। পরে ডা. আল আমিন উম্মে সালমা নামে একজনকে বিয়ে করেন। এই ঘরে তার দুই সন্তান রয়েছে। অন্যদিকে ডা. সিফাত আরা নার্গিসের সঙ্গে প্রকৌশলী মাহবুবর রহমানের বিয়ে হয়। বিয়ের পরও তাদের মধ্যে পরকিয়ার সম্পর্ক ছিল। ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ডা. আল আমিন পুলিশকে জানায়, বৃহস্পতিবার সকাল পৌনে ৯টার দিকে তিনি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে রিকশায় যাচ্ছিলেন। পরীবাগের পাওয়ার হাউজ এলাকায় একটি সাদা মাইক্রোবাস থেকে প্রকৌশলী মাহবুবর রহমান নেমে আসেন। তার সঙ্গে আরো ৩ জন সহযোগী ডা. আল আমিনকে রিকশা থেকে টেনেহেঁচড়ে মাইক্রোবাসে ওঠায়। গাড়িতে ওঠার পর তার চোখ বেঁধে দেওয়া হয়। প্রায় আধঘণ্টা পর চোখ বাঁধা অবস্থায় তাকে মাইক্রোবাস থেকে নামিয়ে একটি বাসায় আটকে রাখা হয়। পরে বিকাল ৪টার দিকে তার লিঙ্গ কেটে দেয়। ওই মাইক্রোবাসে করে তাকে আবারও পরীবাগের কাছে এনে একটি রিকশায় উঠিয়ে দিয়ে পালিয়ে যায় তারা।

শেয়ার করুন