রিজভী-ফারুকসহ ১৪৮ নেতাকর্মীর চার্জ শুনানি ২৪ নভেম্বর

0
78
Print Friendly, PDF & Email

ত্রাস ও বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির অভিযোগে রাজধানীর পল্টন থানার দ্রুত বিচার মামলায় বিএনপির যুগ্ম-মহাসচিব ও দপ্তর সম্পাদক রুহুল কবির রিজভী, বিরোধীদলীয় চিফ হুইপ জয়নাল আবদিন ফারুকসহ ১৪৮ জনের চার্জ শুনানির জন্য ২৪ নভেম্বর দিন ধার্য করেছেন আদালত।

বুধবার ঢাকার চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক মোহাম্মদ তারেক মঈনুল ইসলাম ভূঁইয়া এ দিন ধার্য করেন।

বিএনপির যুগ্ম-মহাসচিব ও দপ্তর সম্পাদক রুহুল কবির রিজভী, বিএনপি’র যুগ্ম-মহাসচিব মো. শাহজাহান, আমানউল্লাহ আমান, বিরোধীদলীয় চিফ হুইপ জয়নাল আবদিন ফারুক, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা জেডএম জাহিদ হোসেন, বিএনপি নেতা হাবিবুর রহমান হাবিবসহ ৮২ আসামির পক্ষে চার্জ শুনানির জন্য সময়ের আবেদন করলে ম্যাজিস্ট্রেট চার্জ শুনানি পিছিয়ে দেন।

এ মামলার জামিনপ্রাপ্ত আসামি সাবেক সংসদ সদস্য গোলাম মর্তুজা তুলাসহ ৬৬ আসামি আদালতে হাজির ছিলেন।

গত ২৪ মার্চ মামলার তদন্ত কর্মকর্তা পল্টন থানার এসআই মাহবুবুল হাসান বিএনপি ও ১৮ দলীয় জোটের ১৪৮ নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে ঢাকার সিএমএম আদালতে চার্জশিট দাখিল করেন। এছাড়া অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় ৬ জনকে অব্যাহতি দেয়া হয়েছে।

মামলার অভিযোগ থেকে জানা যায়, গত ১১ মার্চ বেলা ৩টার দিকে বিএনপির নেতৃত্বাধীন ১৮ দলীয় জোটের বিক্ষোভ কর্মসূচি চলাকালে উল্লেখিত আসামিরাসহ আরও ৫০ থেকে ৬০ জন হঠাৎ করেই ইট পাটকেল, লোহার রড, শাবল, লাঠি, হকিস্টিক, ইত্যাদি হাতে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনের রাস্তার উপর, টপ কালেকশনের গলি ও নয়াপল্টন মসজিদ গলির সামনের রাস্তায় যানবাহন চলাচলে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করে এবং সরকারি-বেসরকারি অফিস ও যানবাহন ভাঙচুর করে।
এছাড়াও পরপর ১৮ থেকে ২০টি ককটেলের বিস্ফোরণ ঘটিয়ে ও রাস্তার ওপর ৭টি স্থানে টায়ার, চট, কাগজ দিয়া আগুন ধরিয়ে জনমনে আতঙ্ক সৃষ্টির অভিযোগ আনা হয়েছে আসামিদের বিরুদ্ধে।

উল্লেখ্য, গত ১১ মার্চ বিকেলে নয়াপল্টনে ককটেল বিস্ফোরণ ও সহিংসতার ঘটনায় বিএনপির কেন্দ্রীয় অফিসের অভিযান চালিয়ে ১৫৪ জন নেতকর্মীকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

শেয়ার করুন