সিরিজ জিতলো দক্ষিণ আফ্রিকা

0
61
Print Friendly, PDF & Email

পাঁচ ম্যাচ সিরিজে একটি মাত্র জয় নিয়েই খুশি থাকতে হলো পাকিস্তানকে। পুরো সিরিজে ব্যাটিং ব্যর্থতায় তারা আর কোনো জয় পায়নি। শেষ ম্যাচেও তারা হেরে গেছে প্রোটিয়াদের কাছে। ফলে দক্ষিণ আফ্রিকা সিরিজ জিতেছে ৪-১ ব্যবধানে।

ওয়ানডেতে দক্ষিণ আফ্রিকার হয়ে দ্রুততম ৬০০০ রান করেছেন এবি ডি ভিলিয়ার্স। তার এই কীর্তির দিনে সিরিজের শেষ ম্যাচে প্রোটিয়ারা হারিয়েছে পাকিস্তানকে। ম্যাচে ডি ভিলিয়ার্সের অপরাজিত সেঞ্চুরিতে ভর করে ২৬৮ রান তুলে দক্ষিণ আফ্রিকা। পরে এ রান টপকাতে গিয়ে ১৫১ রানে অলআউট হয়ে গেছে পাকিস্তান। ফলে ১১৭ রানের বড় জয় পেয়েছে প্রোটিয়ারা।

পাকিস্তানকে ৪-১ ব্যবধানে সিরিজ হারানোর ম্যাচে ভয়েই ছিলো দক্ষিণ আফ্রিকা। গত আগস্টে ২৬৮ রান করেই তারা হেরেছিলো শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে। ফলে এ ম্যাচে ২৬৮ রানের পুঁজিতে স্বস্তিতে ছিলো না তারা। কিন্তু পাক ব্যাটসম্যানদের অহেতুক আউট হওয়ার প্রবণতায় শেষ পর্যন্ত বড় জয়ই পেয়েছে দক্ষিণ আফ্রিকা।

ম্যাচে প্রথম ইনিংসে ব্যাটিং করে ডি ভিলিয়ার্সের অনবদ্য সেঞ্চুরির কল্যাণে ২৬৮ রান সংগ্রহ করে প্রোটিয়ারা। ৪৬ রানের একটি ইনিংস খেলে ডু প্লেসিসও। ২৬৮ রান সংগ্রহ করার পথে ৭ উইকেট হারায় দক্ষিণ আফ্রিকা।

পাকিস্তানের হয়ে এ দিন সেরা বোলার ছিলেন সাঈদ আজমল। ১০ ওভারে ৪৫ রান দিয়ে তিনটি উইকেট নেন তিনি। দু’টি উইকেট নেন জুনায়েদ খান। একটি করে উইকেট শিকার করেন মোহাম্মদ ইরফান ও মোহাম্মদ হাফিজ।

পরে ২৬৯ রানের লক্ষ্যে ব্যাটিংয়ে নেমে আউট হওয়ার মিছিলে মগ্ন হয় পাক বোলাররা! মাত্র ১৭ রানের মধ্যেই তারা হারায় প্রথম তিন উইকেট। শুরুর এক ধাক্কা আর কাটিয়ে উঠতে পারেনি পাকিস্তান। ১১০ রানের মধ্যে পাঁচ উইকেট, এবং শেষ পর্যন্ত তারা ১৫১ রানে ধসে পড়ে। দলের হয়ে সর্বোচ্চ ৫৩ রান করেন শোয়াইব মাকসুদ।

প্রোটিয়া বোলার ওয়েনে পার্নেল তিনটি উইকেট নেন। দু’টি করে উইকেট নেন রায়ান ম্যাকলারেন ও জেপি ডুমিনি।

ম্যাচসেরা নির্বাচিত হোন সেঞ্চুরিয়ান ডি ভিলিয়ার্স।

শেয়ার করুন