ডাচ রাজা-রানীকে পঁচা টমেটো ছুঁড়ে অর্ভ্যথনা!

0
70
Print Friendly, PDF & Email

‘অভিনব` প্রতিবাদের ভাষা পঁচা টমেটো।ডাচ রাজা-রাণীকে লক্ষ্য করে টমেটো ছুঁড়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেছে রাশিয়ার নিষিদ্ধ সংগঠন ন্যাশানাল বলশেভিক পার্টির সদস্যরা। টমোটের আঘাতে দুই দেশের মধ্যে সম্পের্কের টানাপোড়েনের আশঙ্কা।

জুতোর পর এবার পঁচা টমেটো। নেদারল্যান্ডের ক্ষমতাসীন ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে প্রতিবাদের অস্ত্র এখন পঁচা টমেটো। প্রতিবাদের অঙ্গ হিসাবে টমেটো ছুঁড়ে মারা হল ডাচ রাজা ও তার রাণীকে। রাশিয়া-নেদারল্যান্ডসের ঐতিহাসিক চুক্তি সাক্ষরের উত্স‍ব পালনে মস্কোয় এসেছেন ডাচ রাজা উইলেম আলেকজান্দার। রাজার সঙ্গে এসেছেন তার রাণী ম্যাক্সিমা।

সেই সাক্ষরের আগে ডাচ রাজা, রাণী একেবারে রাজকীয় পোশাকে হাজির হন এক সঙ্গীত অনুষ্ঠানে। রাজা-রাণী যখন অনুষ্ঠানে ঢুকতে যাবেন, তেমনই টমেটো উড়ে এসে পড়ল রাজা-রাণীর গায়ে। এই অভিনব প্রতিবাদ দেখালেন নিষিদ্ধ সংগঠন ন্যাশানাল বলশেভিক পার্টি।

ডাচ রাজা-রানীকে পঁচা টমেটো ছুঁড়ে অর্ভ্যথনা!

নিষিদ্ধ সংগঠনের নেতা এদুয়ার্দ লিমোনোভ স্বদর্পে বললেন, পঁচা টমেটো ছুঁড়ে রাজা-রাণীদের উচিত শিক্ষা দিয়েছি আমরা।

টমেটো ছুঁড়ে প্রতিবাদের কারণ নেদারল্যান্ডসের এক জেলে ন্যাশানাল বলশেভিক পার্টির এক শীর্ষে নেতার রহস্যমৃত্যু। চলতি বছরের জানুয়ারিতে আলেকজান্দার দোলমাটোভ নামের সেই নেতা আত্মহত্যা করেন ডাচ গোয়েন্দাদের হেফাজতে থাকা অবস্থায়। তারই শাস্তি হিসাবে পঁচা টমেটো ছোঁড়া হল বলে প্রতিবাদীরা জানান।

রাজা-রাণীর উপর টমেটো ছোঁড়ার ঘটনায় বেশ ক্ষুব্ধ ডাচ প্রশাসন। এমনকি টমেটোর আঘাতে দুই দেশের সম্পর্ক খারাপ হতে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।

শেয়ার করুন