ফোনে পরিচয়, অতঃপর ধর্ষণের অভিযোগ

0
126
Print Friendly, PDF & Email

মুঠোফোনে পরিচয়ের পর প্রেমিকের সঙ্গে দেখা করতে গিয়ে বরিশালের গৌরনদী পৌর এলাকার এক কিশোরী (১৬) ধর্ষণের শিকার হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। মুঠোফোনে প্রেমের সুযোগ নিয়ে গত বৃহস্পতিবার যুবকটি ডেকে নিয়ে তাকে ধর্ষণ করে বলে কিশোরীটি জানিয়েছে। গত শুক্রবার ভোরে ওই যুবক ঢাকা-বরিশাল মহাসড়কের তারাকুপি নামক স্থানে তাকে ফেলে রেখে পালিয়ে যায়।
গৌরনদী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন ওই কিশোরী জানায়, ছয় মাস আগে মুঠোফোনের মাধ্যমে যুবকটির সঙ্গে তার প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। যুবকটি নিজেকে পাশের কালকিনি উপজেলার বাসিন্দা এবং বাদল নামে পরিচয় দেয়।
পরিচয়ের সূত্র ধরে বৃহস্পতিবার বাদল ওই কিশোরীকে গৌরনদী বাসস্ট্যান্ডে যেতে বলে। বিকেল চারটার দিকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে বাসস্ট্যান্ড থেকে মোটরসাইকেলে করে তাকে কালকিনি উপজেলা সদরে নিয়ে যায় যুবকটি। সেখানে সে হাসান নামের এক বন্ধুর বাসায় আটকে রেখে ওই কিশোরীকে ধর্ষণ করে। শুক্রবার ভোরে যুবকটি গৌরনদী পৌঁছে দেওয়ার কথা বলে ওই কিশোরীকে মোটরসাইকেলে করে মহাসড়ক দিয়ে আসছিল। তারাকুপি গ্রামসংলগ্ন রাস্তায় পুলিশের চেকপোস্ট দেখে কিশোরীকে রাস্তার পাশে ফেলে দিয়ে পালিয়ে যায় সে। পরে পথচারীরা তাকে পড়ে থাকতে দেখে গৌরনদী থানার পুলিশকে জানায়। পুলিশ তাকে উদ্ধার করে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে।
এদিকে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক মনিরুজ্জামান জানান, কিশোরীটি মানসিকভাবে খুবই বিপর্যস্ত। তবে ধর্ষণের বিষয়টি পরীক্ষা ছাড়া নিশ্চিত করে বলা যাচ্ছে না।
গৌরনদী থানার উপপরিদর্শক (এসআই) স্বপন কুমার হাওলাদার জানান, ঘটনাস্থল কালকিনি থানাধীন হওয়ায় ওই কিশোরীর বাবাকে সেখানে ধর্ষণ মামলা করতে পাঠানো হয়েছে।
তবে কালকিনি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নাজমুল হুদা জানান, কিশোরীটি ওই যুবকের নাম ছাড়া আর কিছু বলতে পারেনি। অভিযোগ পাওয়ার পর তাঁরা বিষয়টি তদন্ত করে দেখছেন।

শেয়ার করুন