স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে রিজভী : নিজেরা ‘জনরোষ’ থেকে বাঁচার চিন্তা করুন

0
30
Print Friendly, PDF & Email

‘জনরোষ থেকে বাঁচাতে বিরোধী দলীয় নেতার বাসায় নিরাপত্তা বাড়ানো হয়েছে’ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর এমন বক্তব্যের জবাবে বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, “আপনারা নিজেরা কীভাবে জনরোষ থেকে বাঁচবেন, তা চিন্তা করুন।”

সোমবার নয়াপল্টন বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে হরতালের দ্বিতীয় দিন সকালে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে রিজভী আহমেদ এসব কথা বলেন।

রিজভী দাবি করেন, “১৮ দলীয় জোটের ডাকা ৮৪ ঘণ্টার হরতালের ২য় দিনেই রাজধানী বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে।”

প্রধানমন্ত্রিত্ব চাই না, শান্তি চাই- প্রধানমন্ত্রীর এমন বক্তব্যের সমালোচনা করে রিজভী বলেন, “শেখ হাসিনা সত্যিকার অর্থে গণতন্ত্র চান না, তিনি শান্তি চান না। প্রধানমন্ত্রী গুলি, নির্যাতন ও হত্যা করে বিরোধীদলের ওপর ভয়াবহ এক ক্র্যাকডাউন শুরু করেছেন। তিনি সেটাকে শান্ত পরিবেশ বলে অবহিত করছেন। তিনি আসলে কবরে শান্তির কথা বলছেন।”

প্রধানমন্ত্রীর উদ্দেশে রিজভী বলেন, “দেশের মানুষের মনের কথা বুঝুন। মানুষ নির্দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচন করতে উন্মুখ হয়ে আছে।”

সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, “বিরোধীদলীয় নেতাকে কি গৃহবন্দি, নজরবন্দি বা অবরুদ্ধ করে রাখা হয়েছে? এমন প্রশ্নের উত্তর সরকারের কাছে জানতে চাইলেও পাইনি। যা পেয়েছি তা কাপুরুষোচিত জবাব।”

আওয়ামী লীগের মনোয়নপত্র বিক্রি প্রসঙ্গে রিজভী বলেন, “ষড়যন্ত্রের মাধ্যমে নীলনকশার নির্বাচন করতেই এটা করা হচ্ছে। এটি আন্তর্জাতিক মাস্টারপ্ল্যানের একটি অংশ। কিন্তু জনগণের গণঅভ্যুত্থানের মুখে অতীতে কেউ টিকতে পারেনি, তারাও পারবে না।”

এদিকে, বিরোধীদলীয় জোট আহুত ৮৪ ঘণ্টার হরতালের ২য় দিনে বরাবরের মতো ঢিলেঢালা রাজধানীর নয়াপল্টন বিএনপি কার্যালয়সহ আশপাশের এলাকা। দলের যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী ছাড়া মূলত আর কোনো নেতা নেই তালাবদ্ধ কার্যালয়ে।

হরতালে যেকোনো ধরনের নাশকতা ঠেকাতে নয়াপল্টনের আশেপাশের এলাকায় রণপ্রস্তুতি নিয়ে রেখেছে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা। পুলিশ-র্যা বের বিপুল পরিমাণ সদস্যদের সঙ্গে সাদা পোশাকে বিভিন্ন গোয়েন্দা সংস্থার উল্লেখযোগ্য সদস্য মোতায়েন করা হয়েছে বিএনপি কার্যালয়ের সামনে। আনা হয়েছে প্রিজন ভ্যান, রাইড কার ও জলকামান।

তালাবদ্ধ বিএনপি কার্যালয়ে গণমাধ্যমকর্মী ছাড়া আর কাউকে প্রবেশ করতে দেখা যায়নি। আশেপাশে বিএনপির কোনো কর্মীদেরও দেখা যায়নি।

শেয়ার করুন