প্রধানমন্ত্রী কবরের শান্তি খুঁজতে চান

0
86
Print Friendly, PDF & Email

আমি প্রধানমন্ত্রিত্ব চাই না, দেশের শান্তি চাই- প্রধানমন্ত্রীর এমন বক্তব্যের সমালোচনা করে বিএনপি যুগ্ম মহাসচিব অ্যাডভোকেট রুহুল কবির রিজভী আহমেদ বলেছেন, ‘প্রধানমন্ত্রী বিরোধী দলের নেতাকর্মীদের ওপর পুলিশ দিয়ে নির্যাতন নিপীড়ন চালিয়ে কবরের শান্তি খুঁজতে চান।’

তিনি বলেন, ‘সরকারের অব্যাহত নিপীড়ন ও নির্যাতনের মধ্যেও হরতাল সফল হয়েছে। হরতালে সারা দেশের সঙ্গে রাজধানী বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে।’

প্রধানমন্ত্রী বিরোধী দলের শীর্ষ নেতাদের গ্রেপ্তার ও হয়রানি করে রাষ্ট্রীয় সন্ত্রাস চালাচ্ছে বলেও মন্তব্য করেন রিজভী।

বিএনপি নেতৃত্বাধীন ১৮ দলীয় জোটের ডাকা ৮৪ ঘণ্টা হরতালের দ্বিতীয় দিন সোমবার সকালে নয়া পল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি এসব কথা বলেন।

রিজভী বলেন, ‘সরকার সমঝোতার নামে হেয়ালিপনা করে সর্বদলীয় সরকার গঠনের নীলনকশার অংশ হিসেবে একতরফাভাবে নির্বাচন করতে নির্বাচনী মনোনয়ন ফরম বিতরণ শুরু করেছে।

সারাদেশে শান্তিপূর্ণভাবে হরতাল পালিত হচ্ছে উল্লেখ করে রিজভী বলেন,‘সরকার আমাদের নেতাকর্মীদের ওপর নিপিড়ন নির্যাতন অব্যাহত রেখেছে। পিকের্টি করতে দিচ্ছে না। তারপরও জনগন স্বতঃস্ফূর্তভাবে হরতাল পালন করছে। আমাদের আন্দোলন ন্যায় সঙ্গত। তাই চূড়ান্ত সফলতা না আসা পর্যন্ত আন্দোলন অব্যাহত থাকবে।

এদিকে নির্দলীয় নিরপেক্ষ সরকারের দাবি এবং দলের শীর্ষ পাঁচ নেতার মুক্তির দাবিতে টানা ৮৪ ঘণ্টার হরতালের ২য় দিন সকাল থেকে এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত নয়াপল্টন ও এর আশপাশের এলাকায় কোনো ধরনের বিশৃঙ্খলার খবর পাওয়া যায়নি।

নয়াপল্টন বিএনপি অফিসের আশপাশে আইনশৃঙ্খলাবাহিনীর বিপুল সংখ্যক সদস্য মোতায়েন রয়েছে। বিএনপি অফিসের মূল ফটক তালাবদ্ধ রয়েছে। সাংবাদিকরা ভেতরে প্রবেশ করতে চাইলে অফিস কর্মচারী আজাদ তালা খুলে দেন। তবে পুলিশ সাংবাদিক ছাড়া দলীয় নেতাকর্মীদের প্রবেশ করতে দিচ্ছে না।

শেয়ার করুন