আমার বাপ-দাদার কেউ অন্য ধর্মের নয় :শেখ হাসিনা

0
66
Print Friendly, PDF & Email

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ‘হরতালে যেভাবে মানুষ পুড়িয়ে মারা হয় এসব দেখে আমার খুব কষ্ট হয়। এসব দেখে মনে হয় প্রধানমন্ত্রিত্ব চাই না, আমি চাই দেশের মানুষ সুখ আর শান্তিতে থাকুক। দেশের মানুষ দু-মুঠো ভাত খেয়ে শান্তিতে ঘুমাক। এটাই আমার প্রত্যাশা।’
গতকাল সকালে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে প্রশিক্ষণ কার্যক্রমের উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী এসব কথা বলেন। প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আমরা সুন্দরভাবে উন্নত দেশ গড়ে তুলতে চাই। জনগণের উন্নয়ন চাই। আমি প্রধানমন্ত্রিত্ব চাই না। জনগণ চাইলে ভোট দিয়ে প্রধানমন্ত্রী বানাবে আর না চাইলে না বানাবে।’
শেখ হাসিনা বলেন, ‘ধর্মের সঙ্গে জঙ্গিবাদের কোনো স্থান নেই। যারা ধর্মকে ব্যবহার করে জঙ্গিবাদ করে তারা ধর্মের শত্রু। জঙ্গিবাদ মানে ইসলাম নয়।’
প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘বিএনপি-জামায়াত-হেফাজত এক হয়ে মানবতাবিরোধী অপরাধীদের বিচার বন্ধ করার জন্য মরিয়া হয়ে উঠেছে। মানবতাবিরোধী অপরাধীদের বিচার নিশ্চিত করার ব্যাপারে আমরা মনে করি, মানব কল্যাণেই এটা করা উচিত। অথচ সেই বিচার যখন হচ্ছে তখন সেই অপরাধীদের রক্ষা করার নামে উল্টো আগুন দিয়ে মানুষ পোড়ানো হচ্ছে।’
আওয়ামী লীগ সরকারের আমলে ইসলামের ব্যাপক প্রচার হয়েছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘আমি প্রতিদিন সকালে উঠে নামাজ পড়ে কোরআন তেলাওয়াত করে আমার কাজকর্ম শুরু করি। এরপরও যারা বলে আমরা নাকি ইসলামের শত্রু, আমার বাপ-দাদারা ইসলামের নয়, তখন খুব কষ্ট পাই। আমি আমার বাপ-দাদার পূর্ণাঙ্গ বিবরণ দিতে পারবো। তাদের মধ্যে কেউ অন্য ধর্মের নয়।’
প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘বিএনপি-জামায়াতের ক্যাডাররা গাড়িতে আগুন দিয়ে গায়ে পেট্রল দিয়ে মানুষ খুন করছে। তারা দেশের মানুষকে শান্তিকে থাকতে দেবে না। এটা সহ্য হয় না।’
প্রধানমন্ত্রী জানান, কওমি মাদরাসা শিক্ষিতদের কল্যাণে তিনি কিছু করতে চান। কিন্তু কিছু লোক না বুঝেই এর বিরোধিতা করছেন।

শেয়ার করুন