বাংলাদেশের ব্যাপারে আমেরিকা-ভারতের স্বার্থ অভিন্ন: মজীনা

0
58
Print Friendly, PDF & Email

বাংলাদেশে নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত ড্যান ডব্লিউ মজীনা বলেছেন, “বাংলাদেশের ব্যাপারে আমেরিকা ও ভারতের স্বার্থ অভিন্ন। উভয় দেশই স্থিতিশীল বাংলাদেশ দেখতে চায়।’’

তিনি বলেন, ‘‘আমেরিকা বাংলাদেশে অবাধ এবং গ্রহণযোগ্য নির্বাচন দেখতে চায়। নির্বাচনে সব পক্ষের অংশগ্রহণই কাম্য।’’

ড্যান মজীনা গত শনি ও রোববার আমেরিকার মিশিগান সফরকালে তিনি প্রবাসী বাংলাদেশীদের একাধিক অনুষ্ঠানে যোগ দেন। এর মধ্যে বাংলাদেশী আমেরিকান পাবলিক অ্যাফেয়ার্স কমিটি তার সম্মানে এক নৈশভোজের আয়োজন করে।

প্রবাসী বাংলাদেশীদের সঙ্গে শুভেচ্ছা ও মত বিনিময়কালে তিনি বলেন, ‘‘বাংলাদেশে রাজনৈতিক সমস্যা সমাধানের জন্য বড় দলগুলোর মধ্যে সংলাপ এবং শীর্ষ পর্যায়ে পারস্পরিক আলোচনা প্রয়োজন।’’

সবারই মত প্রকাশের স্বাধীনতা রয়েছে উল্লেখ করে মজীনা বলেন, ‘‘রাজনৈতিক মতপার্থক্য নিয়ে সহিংসতা কারো কাম্য হতে পারে না।’’

বাংলাদেশে মানবাধিকার পরিস্থিতি বিষয়ক এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘‘বিষয়টির প্রতি আমেরিকা সতর্ক দৃষ্টি রাখছে।’’

মজিনা আরো বলেন, ‘‘বাংলাদেশের উন্নয়ন, অগ্রগতি এবং স্থিতিশীলতার জন্য প্রবাসীরা গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখতে পারেন।’’

তৈরি পোশাক শিল্পে বাংলাদেশ বিশ্বকে নেতৃত্ব দেয়ার যোগ্যতা রাখে উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘‘রানা প্লাজার মতো আর যাতে কোনো দুর্ঘটনা না ঘটে, তার জন্য আমেরিকা বাংলাদেশকে সর্বোচ্চ সহযোগিতা দিয়ে যাবে।’’

রাষ্ট্রদূত মজিনার সঙ্গে প্রবাসীদের অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন কংগ্রেসম্যান গেরি পিটার, হ্যামট্রামিক নগরীর মেয়র ক্যরল মায়াস্কি, স্টেট সিনেটর হুন ইয়াং, আহসান তাহমিম, নাজমুল হক হেলাল, সৈয়দ সাহেদুল হক, হেলাল উদ্দিন রানা প্রমুখ।

প্রবাসীদের পক্ষ থেকে ঢাকাস্থ মার্কিন দূতাবাসে কনস্যুলার সার্ভিসসংক্রান্ত নানা অব্যবস্থাপনার অভিযোগ তুলে ধরা হয় মজীনার কাছে। এর মধ্যে মার্কিন নাগরিকদের জন্য দূতাবাসে যোগাযোগের সময়সূচি, প্রশাসনিক তদন্তের নামে অভিবাসন আবেদনের বিলম্ব প্রক্রিয়া, দূতাবাস কর্মচারীদের রূঢ় আচরণের ব্যাপারে মজিনার দৃষ্টি আকর্ষণ করেন প্রবাসীরা। এসব সমস্যা সমাধানে তিনি সচেষ্ট হবেন বলে আশ্বস্ত করেন।

শেয়ার করুন