সরে পড়ছেন মন্ত্রীদের একান্ত সচিবরা

0
43
Print Friendly, PDF & Email

সরকারের শেষ সময়ে এসে মন্ত্রী ও প্রতিমন্ত্রীদের একান্ত সচিব (পিএস) ও সহকারী একান্ত সচিবরা (এপিএস) নিজ নিজ পছন্দের জায়গায় নিয়োগ নিয়ে সরে পড়ছেন। ইতিমধ্যে অনেকে মন্ত্রী-প্রতিমন্ত্রীর ডিও (আধা সরকারি পত্র) নিয়ে পোস্টিং নিশ্চিত করেছেন। কেউ কেউ লিয়েনের নামে বিদেশে পাড়ি জমিয়েছেন।

যারা এখনো পোস্টিং নিশ্চিত করতে পারেননি, তারা চেষ্টা চালাচ্ছেন পছন্দের জায়গায় যেতে। এ কারণে জনপ্রশাসনের সচিবের দপ্তরে বাড়ছে মন্ত্রী-প্রতিমন্ত্রীদের ডিওর সংখ্যা। তবে যারা অতিরিক্ত দায়িত্ব হিসেবে মন্ত্রী-প্রতিমন্ত্রীদের পিএস-এপিএস হিসেবে রয়েছেন, তাদের এই ঝামেলায় যেতে হচ্ছে না।

মন্ত্রণালয় সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে।

পিএসদের পোস্টিংয়ের বিষয়ে বিভিন্ন মন্ত্রী-প্রতিমন্ত্রীর ডিও পাওয়ার কথা স্বীকার করেছেন জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব আবদুস সোবহান সিকদার। তিনি নতুন বার্তা ডটকমকে জানান, পিএস-এপিএস নিয়োগের ক্ষমতা আইনই মন্ত্রীকে দিয়েছে। তাদের ইচ্ছাতেই এসব পদে নিয়োগ হয়ে থাকে। আবার মন্ত্রী-প্রতিমন্ত্রীরা যখন ইচ্ছা চাইলে তাদের একান্ত সচিবদের অন্যত্র পোস্টিং দিতেও সুপারিশ করতে পারেন।

আগামী সপ্তাহেই নির্বাচনকালীন অন্তর্বর্তী সরকার গঠনের প্রক্রিয়া শুরু করতে যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। দুই-এক দিনের মধ্যেই মন্ত্রিসভার সদস্যরা তাদের পদত্যাগপত্র প্রধানমন্ত্রীর কাছে জমা দেয়ার কথা রয়েছে। ইতিমধ্যে প্রায় ছয়-সাতজন তাদের পদত্যাগপত্র প্রধানমন্ত্রীর কাছে জমা দিয়েছেন।

মন্ত্রণালয় সূত্র জানানয়, মন্ত্রীদের পদত্যাগপত্র দেয়া শুরু হতেই পিএস-এপিএসদের পছন্দের পোস্টিং পেতে চেষ্টা-তদবিরের মাত্রা ব্যাপকভাবে বেড়ে গেছে। জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের সংশ্লিষ্ট দফতরে এ-সংক্রান্ত আবেদনও বাড়ছে। নিজেদের পিএস-এপিএসের জন্য জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ে ডিও পাঠিয়েছেন একাধিক মন্ত্রী-প্রতিমন্ত্রী।

মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, ভূমিমন্ত্রী রেজাউল করিম হীরার পিএস সত্যব্রত সাহা আগেভাগেই ভূমি মন্ত্রণালয়ের অধীন ল্যান্ড ডিজিটালাইজেশন প্রজেক্টের প্রকল্প পরিচালক পদে নিয়োগ নিয়ে রেখেছেন। পাশাপাশি মন্ত্রীর পিএসের কাজও চালিয়ে যাচ্ছেন তিনি।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী ডা. দীপু মনির পিএস জিঞ্চু রায় চৌধুরী (অতিরিক্ত সচিব) সম্প্রতি ভুটানের রাষ্ট্রদূত পদে নিয়োগ পেয়েছেন।

শ্রম ও কর্মসংস্থানমন্ত্রী রাজিউদ্দিন আহমেদ রাজুর পিএস যুগ্ম সচিব আবদুল হাই সম্প্রতি প্রশিক্ষণের জন্য দেড় মাসের ছুটি নিয়েছেন। প্রতিমন্ত্রী মুন্নুজান সুফিয়ানের পিএস উপসচিব সিরাজুল ইসলাম গত সপ্তাহে একই মন্ত্রণালয়ে পোস্টিং নিশ্চিত করেছেন।

মহিলা ও শিশুবিষয়ক প্রতিমন্ত্রী মেহের আফরোজ চুমকি তার পিএস মো. আবদুল লতিফকে একই মন্ত্রণালয়ের অধীন এনাবলিং এনভায়রনমেন্ট ফর চাইল্ড রাইটস (ইইসিআর) প্রকল্পের উপপরিচালক পদে নিয়োগ দিতে ৩ নভেম্বর জনপ্রশাসন সচিবকে ডিও দিয়েছেন। তবে এখনো এ বিষয়ে কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি।

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী ইয়াফেস ওসমানের এপিএস প্রকৌশলী আতাউল মাহমুদ ইতিমধ্যে জাতীয় ক্রীড়া পরিষদের সহকারী পরিচালক পদে নিয়োগ পেয়েছেন। আর পিএস প্রকৌশলী জাফর উল্লাহ একই মন্ত্রণালয়ের উপপ্রধান বলে তার নতুন করে পোস্টিংয়ের ঝামেলায় যেতে হচ্ছে না।

শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদের পিএস যুগ্ম সচিব ড. মোল্লা জালাল উদ্দিন এখনো কোথাও পোস্টিং নিশ্চিত করতে পারেননি। এপিএস শিক্ষা ক্যাডারের কর্মকর্তা মন্মথ রঞ্জন বাড়ৈ লিয়েনে চার বছরের জন্য দেশের বাইরে চলে যাচ্ছেন।

মৎ্স্য ও প্রাণিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী আবদুল হাইয়ের পিএস প্রণব কুমার সাহা (উপসচিব) প্রথমে একই মন্ত্রণালয়ে পোস্টিং করালেও পরে তা পরিবর্তন করে রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (রাজউক) পরিচালক পদে নিয়োগ পেয়েছেন।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ড. মহীউদ্দীন খান আলমগীরের পিএস উপসচিব ড. আমিনুর রহমান অনেকটা চিন্তামুক্ত। ধারণা করা হচ্ছে, অন্তর্বর্তী সরকারে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বহাল থাকবেন। অন্যদিকে স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শামসুল হক টুকুর পিএস ড. হারুন অর রশিদ বিশ্বাস বিভক্ত ঢাকা সিটি করপোরেশনের যেকোনো প্রজেক্টের পিডি হিসেবে নিয়োগ পেতে চেষ্টা করছেন বলে দফতর সূত্রে জানা গেছে। আইনমন্ত্রীর পিএস উপসচিব শফিউল আজিম কাতারে প্রথম সচিব (লেবার) পদে নিয়োগ পেয়েছেন।

নিজ দায়িত্বের অতিরিক্ত হিসেবে যারা মন্ত্রী-প্রতিমন্ত্রীদের পিএসের কাজ করছেন, তারা অনেকটা ভারমুক্ত। কারণ মন্ত্রীদের পদত্যাগের পর তাদের আর পিএসের কাজটুকু করতে হবে না। অতিরিক্তি দায়িত্ব হিসেবে যারা পিএস আছেন, তারা হলেন: স্থানীয় সরকারমন্ত্রী সৈয়দ আশরাফুল ইসলামের পিএস স্থানীয় সরকার বিভাগের অতিরিক্ত সচিব অশোক মাধব রায়, প্রতিমন্ত্রী জাহাঙ্গীর কবির নানকের পিএস ও স্থানীয় সরকার বিভাগের সিনিয়র সহকারী সচিব মোহাম্মদ হোসেন, প্রাথমিক ও গণশিক্ষামন্ত্রী ডা. আফসারুল আমিনের পিএস ও মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম সচিব রূপন কান্তি শীল, প্রতিমন্ত্রী মোতাহার হোসেনের পিএস একই মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম সচিব জ্যোতির্ময় বর্মণ, নৌপরিবহণমন্ত্রী শাজাহান খানের পিএস একই মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম সচিব সোহরাব হোসেন শেখ, সমাজকল্যাণমন্ত্রী এনামুল হক মোস্তফা শহীদের পিএস একই মন্ত্রণালয়ের উপসচিব মেসবাউল আলম, পানিসম্পদমন্ত্রী রমেশ চন্দ্র সেনের পিএস ও একই মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম সচিব মুহাম্মদ রুহুল কুদ্দুস, প্রতিমন্ত্রী মাহবুবুর রহমানের পিএস পানি উন্নয়ন বোর্ডের অতিরিক্ত মহাপরিচালক আবদুস সালাম মিয়া, মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক প্রতিমন্ত্রী তাজুল ইসলামের এপিএস একই মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সহকারী প্রধান দিদারুল আলম প্রমুখ।

শেয়ার করুন