১৮ দলের আন্দোলনের মূল লক্ষ্য নির্বাচন নয়: মেনন

0
64
Print Friendly, PDF & Email

বিএনপি নেতৃত্বাধীন ১৮-দলীয় জোটের আন্দোলনের মূল্য লক্ষ্য নির্বাচনে যাওয়া নয়, মুক্তিযুদ্ধবিরোধী যুদ্ধাপরাধীদের রক্ষা করা বলে অভিযোগ করেছেন বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেনন। তিনি বলেন, ‘দলীয় সরকারের অধীন নির্বাচনে যাবে না বেগম খালেদা জিয়া এই শর্ত দেওয়ার পর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সর্বদলীয় সরকারের প্রস্তাব দিয়েছেন। কিন্তু এখন বেগম জিয়া বলছেন শেখ হাসিনাকে সর্বদলীয় সরকারের প্রধান রেখে বিরোধী দল নির্বাচনে যাবেন না।’

শনিবার বিকালে দিনাজপুর ইনস্টিটিউট প্রাঙ্গণে ওয়ার্কার্স পার্টি আয়োজিত জনসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে মেনন এসব কথা বলেন।

রাশেদ খান মেনন বলেন, শেখ হাসিনা সর্বদলীয় সরকারের প্রধান না থাকলেও বিএনপি নির্বাচনে যাবে বলে মনে হয় না। কারণ, তাদের আন্দোলনের প্রধান লক্ষ্য বিশেষ এজেন্ডা বাস্তবায়ন করা।

সংবিধানের ৫৭ ধারার উদ্ধৃত করে ক্ষমতাসীন সরকারের এই সাংসদ বলেন, প্রধানমন্ত্রী নির্বাচিত উত্তরসূরির কাছে ক্ষমতা হস্তান্তর করবেন। এ অবস্থায় সর্বদলীয় সরকারের প্রধান হিসেবে শেখ হাসিনাকে বাদ দেওয়ার কোনো সুযোগ নেই।

হরতাল প্রসঙ্গে রাশেদ খান মেনন বলেন, ‘জনস্বার্থে আন্দোলনের হাতিয়ার হিসেবে আমরাও হরতাল করেছি। কিন্তু বর্তমানে ১৮ দল হরতালের নামে নৈরাজ্য কায়েম করেছে। যুদ্ধাপরাধের অভিযোগে জামায়াতে ইসলামীর নেতাদের বিরুদ্ধে রায় ঘোষণার পর থেকে তারা আন্দোলনের নামে সমস্ত রাষ্ট্র ব্যবস্থার বিরুদ্ধে বিদ্রোহ ঘোষণা করেছে। পুলিশ, বিজিবি, সরকারি স্থাপনা, সাধারণ মানুষ তাদের আক্রোশের লক্ষ্যবস্তুতে পরিণত হয়েছে। ককটেল, গান পাউডার, পেট্রলবোমা ব্যবহার করে তারা মানুষ হত্যা করছে।’ তিনি ‘হরতালের নামে দেশব্যাপী নৈরাজ্য এবং মানুষ খুন’ বন্ধ করতে খালেদা জিয়ার প্রতি আহ্বান জানান।

ওয়ার্কার্স পার্টি দিনাজপুর জেলার সম্পাদক রবিউল আউয়ালের সভাপতিত্বে দলের পলিট ব্যুরো সদস্য মাহামুদুল হাসান মানিক, কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য মো. আমিনুল ইসলাম, সৈয়দ মোসাদ্দেক হোসেন, মো. হবিবর রহমান, অধ্যাপক ইয়াসিন আলী ছাড়াও আদিবাসী নেতা রবীন্দ্রনাথ সরেন, বাসন্তী মুর্মু, কৃষক নেতা আবদুল হক, তপন কুমার রায়, আনোয়ারুল ইসলামসহ বিভিন্ন জেলা ও উপজেলার নেতারা বক্তব্য দেন।

এর আগে দুপুরে স্থানীয় প্রেসক্লাবে সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময়কালে রাশেদ খান শুক্রবার ঢাকায় বিএনপির শীর্ষ নেতাদের গ্রেপ্তার প্রসঙ্গে বলেন, লাখ লাখ শিক্ষার্থীদের পরীক্ষা এবং জনগণের জান-মালের নিরাপত্তা বিধানে বিরোধী দলের সহিংস আন্দোলন দমাতে সরকারের কাছে এর কোনো বিকল্প ছিল না।

নেতাদের গ্রেপ্তারে সংলাপের পথে বাধা হবে কি না—সাংবাদিকদের এ প্রশ্নের জবাবে রাশেদ খান মেনন বলেন, খালেদা জিয়ার বক্তব্য অনুযায়ী সংলাপ ও আন্দোলন যদি একসঙ্গে চলতে পারে, তাহলে নেতাদের ধরপাকড়, গ্রেপ্তার এবং সংলাপও একসঙ্গে চলতে বাধা হওয়ার কোনো কারণ নেই।

শেয়ার করুন