সীমান্ত দিয়ে ঢুকছেন ভয়ংকর বিদেশি নাগরিক

0
100
Print Friendly, PDF & Email

দেশের বিভিন্ন এলাকার সীমান্ত দিয়ে ঢুকছেন বিদেশি নাগরিক। তারা ঢুকছেন অবৈধভাবে। তাদের সঙ্গে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা পাচ্ছেন অত্যাধুনিক অস্ত্র। পাওয়া যাচ্ছে বোমা, গ্রেনেড বানানোর উপকরণ। তাদেরকে ‘ভয়ংকর’ মনে করছেন আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা।

প্রশাসনের এক অংশ বলছে, বিদেশি নাগরিকরা দেশে ঢুকছেন পাকিস্তানের গোয়েন্দা সংস্থার সহযোগিতায়। প্রশাসনের অন্য অংশ বিদেশি নাগরিকদের দেশে অনুপ্রবেশের জন্য দায়ী করছেন ভারতীয় গোয়েন্দা সংস্থাকে। তবে প্রশাসনের দুই অংশ স্বীকার করছে, নাশকতা সৃষ্টির জন্যই অবৈধভাবে বিদেশি নাগরিকদের দেশে ঢুকানো হচ্ছে।

গোয়েন্দা সূত্র জানায়, আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচন সামনে রেখে দেশের বিভিন্ন সীমান্ত দিয়ে অবৈধভাবে বিদেশি নাগরিক ঢুকছেন। নাশকতার পরিকল্পনা নিয়ে তারা দেশে ঢুকছেন। নির্বাচনের সময় ঘনিয়ে আসার সঙ্গে বিদেশি নাগরিকদের দেশে ঢুকবার ঘটনা বাড়ছে। দেশে এখন কমপক্ষে ২০ হাজার বিদেশি নাগরিক অপরাধ কর্মকাণ্ডে জড়িত বলে গোয়েন্দারা ধারণা করছেন।

কারা আসছেন অবৈধ পথে বাংলাদেশে, কেন তারা আসছেন- এমন প্রশ্ন অনেকের মনে। বিদেশি নাগরিকদের অনেকে ভুয়া পরিচয় ব্যবহার করে বাংলাদেশে অবস্থান করছেন। তাদেরকে নিয়ে প্রশাসনের দুই অংশের কর্মকর্তাদের আছে ভিন্ন রকম মত। প্রশাসনের বিএনপি-জামায়াতের প্রতি সহানুভূতিশীল কর্মকর্তারা মনে করেন, ভারতের গোয়েন্দা সংস্থা র এর সহযোগিতায় বিদেশি নাগরিকরা দেশে ঢুকছেন। তাদেরকে দিয়ে বিরোধী দলের নেতাকর্মীদেরকে দমন করানোই এর উদ্দেশ্য।

প্রশাসনের বেশিরভাগ কর্মকতা বলছেন, পাকিস্তানের গোয়েন্দা সংস্থা আইএসআই প্রশিক্ষিত ক্যাডার, জঙ্গিদেরকে বাংলাদেশে ঢুকাচ্ছে। আগামী সংসদ নির্বাচন ঠেকানো, নাশকতা ও নৈরাজ্য সৃষ্টিই তাদের তাদের উদ্দেশ্য।

সবশেষ গত সপ্তাহে ভারত থেকে বিদেশি নাগরিকদের দুটি পাজেরো জীপ নিয়ে সিলেট সীমান্ত দিয়ে দেশে অনুপ্রবেশের ঘটনা ঘটে। প্রশাসনও এতে উদ্বিগ্ন হয়ে উঠে। পুলিশের ধারণা, ব্রিটিশ নাগরিকরা গাড়ি দুটি নিয়ে বাংলাদেশে অনুপ্রবেশ করতে পারেন। এছাড়া নাশকতার পরিকল্পনার বিষয়টিও উড়িয়ে দিচ্ছে না পুলিশ প্রশাসন।

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, বাংলাদেশে অবস্থানকারী নিখোঁজ বিদেশি নাগরিকদের মধ্যে অধিকাংশই ভারত, ক্যামেরুন, পাকিস্তান, ফিলিপাইন, নাইজেরিয়া, ঘানা, কঙ্গো, লিবিয়া, ইরাক, আফগানিস্তান, আলজিরিয়া, সুদান, তাঞ্জানিয়া, উগান্ডা ও শ্রীলঙ্কার নাগরিক।

বাংলাদেশে কতো বিদেশি নাগরিক বৈধ বা অবৈধভাবে বাস করছেন, এমন তথ্য নেই সরকারের কোনো মন্ত্রণালয়ের কাছে। নিয়ম অনুযায়ী স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের ইমিগ্রেশন বিভাগে এসব তথ্য থাকার কথা। এসবির ইমিগ্রেশন বিভাগ শুধু বিমানবন্দর হয়ে যারা প্রবেশ করেন, তাদের হিসাব রাখে। দেশে প্রবেশের পর এসব বিদেশি যথাসময় ফিরে যান কী না, এমন তথ্যও নেই ইমিগ্রেশন বিভাগের কাছে।

শেয়ার করুন