৪৭ পার হলেন কিং খান …

0
55
Print Friendly, PDF & Email

৪৭ পেরিয়ে ৪৮-এ পা রাখলেন বলিউডের জনপ্রিয় অভিনয়শিল্পী শাহরুখ খান। বয়সের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে বেড়ে চলেছে শাহরুখ খানের জনপ্রিয়তা। এখনো অনেক কিশোরী-তরুণীর স্বপ্নের নায়ক তিনি। বিশ্বজুড়ে তাঁর অগুনতি ভক্ত। এখনো তাঁর কোনো ছবি মুক্তি পেলে তা আগের সব রেকর্ড ভাঙচুর করে গড়ে নতুন রেকর্ড।

‘বলিউড বাদশা’ শাহরুখ খান ১৯৬৫ সালের ২ নভেম্বর দিল্লিতে জন্মগ্রহণ করেন। প্রথমদিকে টেলিভিশনে অভিনয়ের মধ্য দিয়ে মিডিয়াতে পথচলা শুরু করেন তিনি। ১৯৮৮-৮৯ সালে টেলিভিশন ধারাবাহিক ‘ফৌজি’ ও ‘আজিজ মির্জা সার্কাস’ দিয়ে নিজেকে সবার কাছে আলোচিত করে তোলেন শাহরুখ। মায়ের মৃত্যুর পর ১৯৯১ সালে শাহরুখ খান মুম্বাইয়ে চলে যান। আর তখনই শাহরুখের সঙ্গে পরিচয় হয় গৌরীর। এরপর দুজনের প্রেম এবং প্রেমের পরিণতি হিসেবে ১৯৯১ সালের ২৫ অক্টোবর বিয়ে করেন তাঁরা।

বিয়ের পর শাহরুখ খান প্রথম ছবির প্রস্তাব পান। ‘দিল আসনা হ্যায়’ নামের এই ছবিটি ছিল হেমা মালিনী পরিচালিত প্রথম ছবি। এদিকে প্রথম ছবিটির দেরির কারণে ১৯৯২ সালে ‘দিওয়ানা’ ছবিটি দিয়ে বলিউডে অভিষেক হয় শাহরুখ খানের। ‘দিওয়ানা’ ছবিটি দিয়ে তিনি অর্জন করেন ফিল্ম ফেয়ারে ‘সেরা নবাগত’র পুরস্কার। এরপর আর পেছন ফিরে তাকাতে হয়নি তাঁকে। ১৯৯৩ সালে ‘বাজিগর’ ও ‘ডর’ ছবিতে খল চরিত্রের অভিনয় শাহরুখ খানকে বলিউডে প্রতিষ্ঠিত করে দেয়। অর্জন করেন বিপুল জনপ্রিয়তা। ‘বাজিগর’ ছবির জন্য ‘সেরা অভিনেতা’ বিভাগে ফিল্মফেয়ার পুরস্কার লাভ করেন।

শাহরুখ খান অভিনীত উল্লেখযোগ্য ছবির মধ্যে রয়েছে দিলওয়ালে দুলহানিয়া লে যায়েঙ্গে (১৯৯৫), দিল তো পাগল হ্যায় (১৯৯৭), কুছ কুছ হোতা হ্যায় (১৯৯৮), মোহাব্বতে (২০০০), কাভি খুশি কাভি গাম (২০০১), দেবদাস (২০০২), কাল হো না হো (২০০৩), বীর-জারা (২০০৪), ওম শান্তি ওম (২০০৭), রা ওয়ান (২০১১), চেন্নাই এক্সপ্রেস (২০১৩) ইত্যাদি।

কাজের স্বীকৃতি হিসেবে শাহরুখ খান ১৩ বার ফিল্মফেয়ার পুরস্কার পেয়েছেন। এর মধ্যে সাতবারই সেরা অভিনেতার পুরস্কার। তিনি ‘পদ্মশ্রী’ খেতাবে ভূষিত হন ২০০৫ সালে। এ ছাড়া আরও অনেক পুরস্কার ঝুলিতে ভরেছেন গুণী এ অভিনয়শিল্পী।

২০০০ সালে ‘ফিরভি দিল হ্যায় হিন্দুস্তানি’ ছবির মাধ্যমে প্রযোজক হিসেবে আত্মপ্রকাশ করেন শাহরুখ। বন্ধু ও সহকর্মী জুহি চাওলাকে নিয়ে ড্রিমস আনলিমিটেড নামে চলচ্চিত্র প্রযোজনা প্রতিষ্ঠানের ব্যানারে ছবিটি নির্মিত হয়। পরবর্তী সময়ে ড্রিমস আনলিমিটেড প্রতিষ্ঠানটি পরিচালনার দায়িত্ব নিজের কাঁধেই তুলে নেন শাহরুখ। ২০০২ সালে প্রতিষ্ঠানটির নাম পরিবর্তন করে রেড চিলিস এন্টারটেইনমেন্ট রাখেন তিনি। এই প্রতিষ্ঠানের ব্যানারে ‘ম্যায় হুঁ না’, ‘ওম শান্তি ওম’, ‘মাই নেম ইজ খান’, ‘ডন ২’, ‘রা ওয়ান’, ‘স্টুডেন্ট অব দ্য ইয়ার’, চেন্নাই এক্সপ্রেস’-এর মতো ব্যবসাসফল ছবি উপহার দিয়েছেন শাহরুখ।

শাহরুখ খানের ৪৮তম জন্মদিনে সামাজিক যোগাযোগ রক্ষার ওয়েবসাইট টুইটারে তাঁকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন অসংখ্য ভক্ত। বলিউডের বেশ কয়েকজন তারকা ও নির্মাতাও শাহরুখ খানকে টুইটার বার্তার মাধ্যমে জন্মদিনের শুভকামনা জানিয়েছেন। তাঁদের মধ্যে আছেন করণ জোহর, তুষার কাপুর, দিয়া মির্জা, বিবেক ওবেরয়, রিতেশ দেশমুখ প্রমুখ। করণ জোহর তাঁর টুইটার বার্তায় লিখেছেন, ‘তাকে শুভেচ্ছা জানাই যিনি পুরো জাতিকে ভালোবাসতে শিখিয়েছেন। শাহরুখ খান! শুভ জন্মদিন! আমার সবটুকু ভালোবাসা রইল সব সময়ের জন্য।’ বিবেক ওবেরয় লিখেছেন, ‘জন্মদিনের শুভেচ্ছা রইল এক এবং অদ্বিতীয় শাহরুখ খানের জন্য।’

দিয়া মির্জা লিখেছেন, ‘হায়দরাবাদের ছোট্ট একটি মেয়ে, যে দিলওয়ালে দুলহানিয়া লে যায়েঙ্গে সিনেমাটি কয়েকবার করে দেখত, সে কখনোই ভাবেনি একদিন শাহরুখ খানের সঙ্গে একই ফ্রেমে আবদ্ধ হওয়ার সুযোগ হবে তার। অনেকগুলো মুহূর্তকে চমত্কার করে তোলার জন্য ধন্যবাদ। শুভ জন্মদিন।’

শেয়ার করুন