সমাবেশ করবেই বিএনপি

0
97
Print Friendly, PDF & Email

নির্বাচনকালীন সরকার নিয়ে সংকট নিরসনে আলাপ আলোচনার পাশাপাশি রাজপথেও লাগাতার আন্দোলন চালিয়ে যাবার সিদ্ধান্ত নিয়েছে প্রধান বিরোধী দল বিএনপি।
এজন্য যে কোনো মূল্যে ২৫ অক্টোবরের মহাসমাবেশ করতে চায় বিএনপি।

সমাবেশ শুরু হবে দুপুর দুইটায়। খালেদা জিয়া নয়াপল্টনে সমাবেশস্থলে পৌঁছবেন তিনটায়। সেদিন সমাবেশ থেকে সরকারকে আল্টিমেটাম দিয়ে নতুন কর্মসূচি ঘোষণা করবেন তিনি। সমাবেশ করতে না দিলে ২৭ অক্টোবর থেকে লাগাতার হরতাল, রেল-সড়ক ও নৌপথ অবরোধ, ঢাকা বিচ্ছিন্ন করাসহ কঠোর কর্মসূচি দেয়া হবে। তবে লাগাতার অবরোধ কর্মসূচি দেয়ার সম্ভাবনা বেশি।

সংসদে যোগ দেয়ার বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিতে মঙ্গলবার রাতে জোটের সাংসদদের সাথে বৈঠক করেন খালেদা জিয়া। বৈঠকে এসব বিষয়ে আলোচনা করে প্রথমিক সিদ্ধান্ত নেয়া হয় বলে জানা গেছে।

জানা গেছে, বৈঠকে ২৫ অক্টোবরের সমাবেশ, চেয়ারপারসনের দেয়া প্রস্তাব ও সংসদে যোগদানের বিষয়ে আলোচনা হয়। বৈঠকে চেয়ারপারসন সংসদ সদস্যদের চূড়ান্ত আন্দোলনের জন্য প্রস্তুতি ও রাজপথে থাকার নির্দেশ দেন। পাশাপাশি দলের ভারপ্রাপ্ত মহাসচিবের নির্দেশনা যথাযথভাবে পালন করার নির্দেশ দেন। বৈঠকে সংসদ সদস্যরা চেয়ারপারসনকে রাজপথে থাকার প্রতিশ্রুতি দেন।

এদিকে মঙ্গলবার রাতে মির্জা আব্বাস, তরিকুল ইসলাম, জাগপার সভাপতি শফিউল আলম প্রধান, এনপিপির শওকত হোসেন নিলু ও মহানগর বিএনপির সদস্য সচিব আব্দুস সালামসহ বেশ কয়েকজন নেতা চেয়ারপারসনের সাথে দেখা করেন। খালেদা জিয়া প্রত্যেকের সাথেই আলাদা কথা বলেন।

একাধিক সূত্রে জানা গেছে, এই নেতাদের সাথে আলাপকালে খালেদা জিয়া যে কোন মূল্যে ২৫ অক্টোবর সমাবেশ করার নির্দেশনা দেন।

সূত্র জানায়, দুপুর দুইটায় নয়াপল্টনে সমাবেশ শুরু হবে। তিনটায় খালেদা জিয়া সমাবেশস্থলে পৌঁছবেন। এজন্য সমাবেশের দিন সকাল থেকেই নয়াপল্টন এলাকায় নেতাকর্মীদের সর্বোচ্চ উপস্থিতি নিশ্চিত করতে বলা হয়েছে।

খালেদা জিয়ার সাথে আলাপের বিষয়ে শফিউল আলম প্রধান বাংলামেইলকে বলেন, বেগম জিয়া সবার কাছ থেকেই আলাদাভাবে মতামত গ্রহণ করছেন। জাগপার পক্ষ থেকে আমি তাকে বলেছি, রাজপথ ছেড়ে দিয়ে আলোচনা করা ঠিক হবে না। আমাদের যে আন্দোলনের ইতিহাস আছে তাতে রাজপথে আন্দোলন ও আলোচনা একসাথে চলতে পারে। সমাধান হলে ভালো না হলে রাজপথের দখল ছাড়া যাবে না।

২৫ অক্টোবরের সমাবেশ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে তিনি বলেন, এ বিষয়ে জোটের বৈঠকে আলোচনা হয়েছে। সমাবেশ করতে না দিলে অবরোধসহ টানা কর্মসূচি দেয়া হবে।

এর আগে দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য ও জোট নেতাদের সাথে বৈঠক করেন খালেদা জিয়া। ঐ দুই বৈঠকেও এমন সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

আব্দুস সালাম বাংলামেইলকে বলেন, এবারের সমাবেশ সর্বকালের রেকর্ড অতিক্রম করবে। সেরকম প্রস্তুতি নেয়া হচ্ছে। ঢাকা মহনগরের সকল স্তরের নেতাকর্মীকে এ জন্য প্রস্তুতি নিতে বলা হয়েছে।

শেয়ার করুন