ধর্ষণে ব্যর্থ হয়ে অ্যাসিড নিক্ষেপ

0
320
Print Friendly, PDF & Email

মাদারীপুরে রোববার দিবাগত রাতে সুবর্ণা গয়লা (২৩) নামের এক বিধবা নারীর ওপর অ্যাসিড নিক্ষেপের ঘটনা ঘটেছে। ধর্ষণে ব্যর্থ হয়ে নির্মল সন্ন্যাসী (২৫) নামের এক প্রতিবেশী তাঁকে অ্যাসিড ছুড়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।
সুবর্ণা ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে (ওসিসি) চিকিৎসাধীন রয়েছেন। সুবর্ণার বাড়ি মাদারীপুর জেলার রাজৈর উপজেলার রথবাড়ী গ্রামে।
সুবর্ণার খালাতো ভাই অজিত গাইন জানান, এক বছর আগে সুবর্ণার স্বামী নীলরতন গয়লা সড়ক দুর্ঘটনায় মারা যান। এর পর থেকে সুবর্ণা তাঁর দুই মেয়েকে নিয়ে স্বামীর বাড়িতে থাকছিলেন। কিন্তু স্বামীর মৃত্যুর পর থেকে প্রতিবেশী নির্মল প্রতিনিয়ত তাঁকে উত্ত্যক্ত করতেন। ১২ সেপ্টেম্বর ভোরে নির্মল কয়েকজন সহযোগী নিয়ে সুবর্ণাকে ধর্ষণের চেষ্টা করেন। পরদিন সুবর্ণা নির্মলসহ পাঁচজনকে আসামি করে ধর্ষণচেষ্টার অভিযোগে রাজৈর থানায় একটি মামলা করেন। পাঁচ দিন পর গ্রেপ্তার হন নির্মল। ১২ দিন পর জামিনে বেরিয়ে এসে নির্মল মামলা তুলে নিতে সুবর্ণাকে হুমকি দিতে থাকেন। হুমকির ঘটনায় ২ অক্টোবর রাজৈর থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেন সুবর্ণা। এ ঘটনায় ক্ষুব্ধ হয়েই নির্মল সুবর্ণাকে অ্যাসিড নিক্ষেপ করেছেন।
সুবর্ণা জানান, রোববার রাত পৌনে ১০টার দিকে তিনি প্রকৃতির ডাকে দরজা খুলে বাইরে বের হন। এ সময় নির্মল তাঁকে লক্ষ্য করে অ্যাসিড নিক্ষেপ করে পালিয়ে যান। অ্যাসিড তাঁর বাঁ হাত ও কাঁধে পড়েছে। পরে স্থানীয় লোকজন তাঁকে প্রথমে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ও পরে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করেন।
ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের সার্জারি বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক রতন কুমার সাহা জানান, অ্যাসিডে সুবর্ণার বাঁ বাহু ও কাঁধে ক্ষতের সৃষ্টি হয়েছে। গতকাল দুপুরে তাঁকে ওসিসিতে স্থনান্তর করা হয়েছে। রাজৈর থানার এএসআই আলমগীর হোসেন বলেন, নির্মল পলাতক রয়েছেন। তাঁকে ধরতে পুলিশি অভিযান চলছে।

শেয়ার করুন