দেশজুড়ে পুলিশী রেড এলার্ট

0
78
Print Friendly, PDF & Email

রাজধানীতে সভা-সমাবেশ নিষিদ্ধের প্রতিবাদে রবিবার সারাদেশের জেলা সদরে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করবে বিরোধীদল বিএনপি। দলটি দলীয়ভাবে এ কর্মসূচি ঘোষণা করলেও জোট শরিক জামায়াতে ইসলামীসহ অন্যান্য শরিকরাও এ কর্মসূচিতে অংশ নেবে বলে জোট সূত্রে জানা গেছে।

গোয়েন্দা সংস্থা সূত্রে জানা গেছে, রবিবার বিক্ষোভকে ঘিরে সারাদেশে বড় ধরনের সহিংসতার ছক কষছে জামায়াত-শিবির। অন্যদিকে বিএনপি ও অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীরাও মাঠে নামার প্রস্তুতি নিচ্ছে। তবে যেকোনো ধরনের নাশকতা ঠেকাতে দেশজুড়ে নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করেছে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী।

পুলিশ সদরদপ্তর সূত্র জানায়, শনিবার রাত থেকেই সতর্ক অবস্থান নিয়েছে পুলিশ। বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনাগুলোর সামনে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। এছাড়া থানাগুলোতেও জোরদার করা হয়েছে সতর্কতা। এমনকি মাঠে নেমে যারা অরাজকতা সৃষ্টির চেষ্টা করবে তাদের বিরুদ্ধেও তাৎক্ষণিক ব্যবস্থা নেবে পুলিশ।

জানতে চাইলে ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) অতিরিক্ত কমিশনার ইব্রাহিম ফাতেমী বলেন, রাজধানীতে খোলা জায়গা কিংবা মিলনায়তন কোথাও কোনো সভা-সেমিনার করা যাবে না। এ নিষেধাজ্ঞার পরও যারা সভা-সমাবেশ করবেন তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে। এছাড়া যেকোনো ধরনের নৈরাজ্যকর পরিস্থিতি মোকাবিলায় পুলিশ সর্তক রয়েছে বলে জানান তিনি।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে এক গোয়েন্দা কর্মকর্তা জানান, জামায়াত-শিবির রবিবার থেকে ঢাকাসহ সারাদেশে নাশকতা সৃষ্টি করতে পারে এমন সংবাদ রয়েছে। তারা সরকারের গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনায় হামলা চালাতে পারে। এজন্য আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে আগে থেকেই সতর্ক অবস্থানে থাকার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। 

শনিবার বিএনপি স্থায়ী কমিটির বৈঠক চলাকালে এক ফাঁকে বের হয়ে দলের ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর সভা-সমাবেশ নিষিদ্ধের প্রতিবাদে রবিবার বিক্ষোভ ও সমাবেশের ঘোষণা দেন।

শেয়ার করুন