নাটোরে স্বর্ণের দোকানে ডাকাতি

0
77
Print Friendly, PDF & Email

নাটোর শহরের প্রাণ কেন্দ্র কাপুরিয়াপট্টি এলাকার যমুনা জুয়েলার্সে ডাকাতির ঘটনা ঘটেছে।

সোমবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে ডাকাতরা শো-কেস ভাঙচুর করে প্রায় অর্ধকোটি টাকার  স্বর্ণালংকার লুট করে নিয়ে যায়।

এ সময় ডাকাতদের চাপাতির আঘাতে দোকানের দুই কর্মচারী আহত হয়েছেন।

পুলিশ  ও প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে একটি সাদা রঙের নোয়া মাইক্রোবাস নিয়ে সাত/আটজনের একটি ডাকাত দল যুমনা জুয়েলার্সে আসে।

ডাকাতদের ছয়জন জুয়েলার্সের ফটক আগলে রাখে। একজন পিস্তল উচিয়ে দোকানের মালিক প্রহলাদ চন্দ্র রায়কে সবকিছু বস্তায় ভরে দিতে বলে।
 
এ সময় দোকানের মালিক মালামাল দিতে না চাইলে   কয়েকজন ডাকাত দোকানে ঢুকে এলোপাথাড়ি ভাঙচুর করে। পরে তারা নিজেরাই শো-কেসে থাকা বেশকিছু তৈরি করা  স্বর্ণালংকার বস্তায় ভরে মাইক্রোতে উঠে পূর্ব দিকের শুকুলপট্রি রাস্তা দিয়ে পালিয়ে যায়।
 
এ সময় দোকানের দুই কর্মচারী তরুণ (৩৪) ও বাসুদেব (৪২) বাধা দেওয়ার চেষ্টা করলে তাদের ধারালো অস্ত্র দিয়ে আঘাত করা হয়।

এদিকে, পালিয়ে যাওয়ার সময় আশপাশের দোকানিরা এগিয়ে আসলে ডাকাতরা একাধিক  ককটেলের বিস্ফোরণ ঘটায় ও এক রাউন্ড গুলি করে।

ঘটনার পর নাটোরের পুলিশ সুপার ড. নাহিদ হোসেন,  অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ও সদর সার্কেলসহ ঊর্দ্ধতন পুলিশ কর্মকর্তাগণ ঘটনাস্থলে ছুটে আসেন।

শহরের নীচাবাজার পুলিশ ফাঁড়ি ও ট্রাফিক অফিসের মাত্র পাঁচশ গজের মধ্যে শত শত মানুষের সামনে এই ঘটনা ঘটায় ব্যবসায়ীদের মাঝে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। মুহুর্তের মধ্যে সব দোকানপাট বন্ধ হয়ে যায়।
 
নাটোরের (সদর সার্কেল) সহকারী পুলিশ সুপার তরিকুল ইসলাম বাংলানিউজকে বলেন, পূর্ব পরিকল্পিতভাবে যাত্রীবেশে দুর্বৃত্তরা দোকানে ঢুকে এ ঘটনা ঘটিয়েছে।

শেয়ার করুন