পাট কেনার টাকা নেই বিজেএমসির

0
57
Print Friendly, PDF & Email

সোমবার জাতীয় সংসদে জরুরি জনগুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে মনোযোগ আকর্ষণের এক নোটিসের জবাবে তিনি বলেন, “বিজেএমসির মূলধন শূন্যের কোটায় পৌঁছেছে। এজন্য পাট ক্রয় করতে পারছি না।”

তবে পাটকলের জন্য অর্থছাড় হলে দাম স্বাভাবিক হয়ে আসবে বলে জানান মন্ত্রী।

ফরিদপুর-১ আসনের সাংসদ মো. আব্দুর রহমান নোটিসে বলেন, তার জেলার অনেক পাটচাষী ন্যায্যমূল্য না পেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। গড়ে পাটের মনপ্রতি উৎপাদন খরচ ১৫/১৬ শ’ টাকা হলেও বর্তমানে তা ১৩/১৪ শ’ টাকা বিক্রি হচ্ছে। চাষীদের পাট আবাদে আগ্রহী হতে পাটের ন্যূনতম মূল্য মনপ্রতি প্রায় ২৫শ’ টাকা করা প্রয়োজন।

পাটচাষীরা প্রত্যাশিত মূল্য না পেলেও বর্তমান মূল্যে ‘ক্ষতিগ্রস্ত’ হচ্ছে না বলে দাবি করেন মন্ত্রী।

তিনি বলেন, এখন পাটচাষীরা সব মিলিয়ে মনপ্রতি ২২-২৩শ’ টাকা পায়। বিজেএমসি বাজারে এলে ২৫-২৭ শ’ টাকা পাবে।

বিরোধী দল পাটশ্রমিকদের উস্কানি দিচ্ছে বলেও অভিযোগ করেন আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য লতিফ সিদ্দিকী।

“সামনে ঈদ। পাটকলের শ্রমিকরা চতুর্থ কিস্তি দেয়ার তাগাদা দিচ্ছে। বিভিন্ন স্থানে ধ্বংসাত্মক কার‌্যক্রম চলছে। বিরোধী দল তাদের উস্কানি দিচ্ছে। কল ভাংচুর করতে উৎসাহ দিচ্ছে।”

শেয়ার করুন