আ.লীগ ৫০ বছরেও ক্ষমতায় আসবে না: ফারুক

0
75
Print Friendly, PDF & Email

তত্ত্বাবধায়ক সরকার ব্যবস্থা সংবিধানে সম্পৃক্ত করে আগামী নির্বাচন দিলে আওয়ামী লীগ আগামী ৫০ বছরেও ক্ষমতায় আসতে পারবে না বলে মন্তব্য করেছেন বিরোধী দলীয় চিফ হুইপ জয়নাল আবিদন ফারুক।

শুক্রবার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাব ভিআইপি লাউঞ্জে ‘সরকারের নাশকতা প্রচারণা এবং বাস্তবতা’ শীর্ষক আলোচনা সভায় তিনি এই মন্তব্য করেন। আলোচনা সভার আয়োজন করে বাংলাদেশ ইয়ুথ ফোরাম।

জয়নাল আবদিন ফারুক বলেন, আওয়ামী লীগ ভালো করেই জানে তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে নির্বাচন দিলে তারা পুণরায় ক্ষমতায় আসতে পারবে না। আর বাংলাদেশের জনগণ ৫টি সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে ১৮ দলীয় জোটকে জয়ী করে আওয়ামী লীগকে বোঝাতে চেয়েছে তাদেরকে আর ৫০ বছরেও ক্ষমতায় কেউ দেখতে চায় না।

তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ সরকারের দুর্নীতি, অত্যাচার, নির্যাতন ও নৈরাজ্যে অতিষ্ঠ বাংলাদেশের ১৬ কোটি মানুষ। তারা আজ এই সরকারকে আর ক্ষমতায় দেখতে চায় না। এটাই হচ্ছে সরকারের বড় ভয়। আর এই কারণেই সংবিধান থেকে তত্ত্বাবধায়ক সরকার ব্যবস্থা বাতিল করে ক্ষমতায় চিরস্থায়ীভাবে থাকার ষড়যন্ত্র করছে বর্তমান আওয়ামী লীগ।

আওয়ামী লীগের শীর্ষস্থানীয় নেতারা বলেছেন বিরোধীদলীয় নেত্রী খালেদা জিয়া আন্দোলন করতে জানেন না- এই প্রসঙ্গে সরকারের উদ্দেশ্যে ফারুক বলেন, আন্দোলন কত প্রকার ও কি কি তা সময় এলেই বিরোধীদলীয় নেত্রী আপনাদের দেখিয়ে দিবেন। একদিন ঘুম থেকে উঠে দেখবেন আপনারা ক্ষমতায় নেই।

সংসদে যাওয়া প্রসঙ্গে তিনি বলেন- বিএনপি সংসদে যেতে চায়, সরকারি দলের সব অপকর্মের কথা তুলে ধরতে চায়, কিন্তু যখনই সরকারের দুর্নীতি ও অপকর্মের কথা সংসদে তুলে ধরা হয় তখনই স্পিকার আমাদের থামিয়ে দেন। স্পিকার ও সরকার বিএনপিকে বিরোধীদল হিসেবে দেখে না, আসন সংখ্যা বিবেচনা করে মূল্যায়ন করে।

এ সময় আগামী ৩০ সেপ্টেম্বর পুনরায় জাতীয় সংসদ বসবে জানিয়ে সেই অধিবেশনেই সরকারকে সংবিধানে তত্ত্বাবধায়ক ব্যবস্থা সম্পৃক্ত  করার আহবান জানান তিনি।

আয়োজক সংগঠনের উপদেষ্টা মো. মাইনুল ইসলামের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন, যুবদলের সভাপতি সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, সংগঠনের সভাপতি মুহাম্মাদ সাইদুল রহমান প্রমুখ।

শেয়ার করুন