নারী নির্যাতন : পরকীয়ায় বাধার জের : চকরিয়ায় স্ত্রীকে এসিডে ঝলসে দিল স্বামী ও তার বন্ধুরা

0
42
Print Friendly, PDF & Email

পরনারীর সঙ্গে অবৈধ সম্পর্কে বাধা দেয়ায় নিজের স্ত্রীকেই এসিডে ঝলসে দিয়েছে পাষণ্ড স্বামী। স্ত্রীকে এসিড নিক্ষেপে তাকে সহায়তা করেছে বখাটে দুই বন্ধু।
কক্সবাজারের চকরিয়া উপজেলার সুরাজপুর-মানিকপুর ইউনিয়নের সুরাজপুর গ্রামে এমন ঘটনাটি ঘটেছে। গত শুক্রবার রাতে এ ঘটনা ঘটে।
এসিডদগ্ধ মর্জিনা বেগমকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। তবে ঘটনার পর থেকেই স্বামী আবদুল মজিদ ও পাড়ার ওই দুই বখাটে যুবক এলাকা ছেড়ে পালিয়েছে।
মর্জিনা বেগমের ভাই জাহেদুল ইসলাম সিকদার জানান, শুক্রবার রাতে তার ভগ্নিপতি ও তার অপর দুই বখাটে বন্ধুসহ এক তরুণীকে বাড়িতে এনে অবৈধ মেলামেশার চেষ্টা করে। এতে বাধা দেয়ায় ক্ষিপ্ত হয়ে দুই বখাটে বন্ধুসহ স্বামী আবদুল মজিদ নিজের স্ত্রী মর্জিনা বেগমের শরীরে এসিড নিক্ষেপ করে।
তিনি জানান, পাষণ্ড স্বামীর এসিডে মর্জিনার বেগমের মুখসহ শরীরের বিভিন্ন অংশ ঝলসে যায়।
যন্ত্রণায় কাতর মর্জিনার চিত্কার শুনে পাড়ার লোকজন এসে তাকে উদ্ধার করেন। প্রথমে তাকে চকরিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে চিকিত্সকরা তাকে উন্নত চিকিত্সার জন্য চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পরামর্শ দেন। জাহেদুল ইসলাম জানান, বর্তমানে চট্টগ্রামে মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে তার বোন মর্জিনার চিকিত্সা চলছে।
ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন সুরাজপুর-মানিকপুর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান আজিমুল হক আজিম। তিনি জানান, মর্জিনাকে এসিড নিক্ষেপের পর পরই স্বামী আবদুল মজিদ ও বখাটেরা এলাকা ছেড়ে পালিয়ে গেছে। তার দাবি, স্থানীয় লোকজন তাদের খোঁজ করেও পায়নি।
এ ব্যাপারে চকরিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রনজিত বড়ুয়া সাংবাদিকদের জানান, লোকমুখে তিনি ঘটনা শুনেছেন। তবে শনিবার রাত পর্যন্ত থানায় কেউ লিখিত অভিযোগ করেননি। তিনি জানান, লিখিত অভিযোগ পেলেই আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।
কলাপাড়ায় ভাড়াটিয়ার স্ত্রীকে ধর্ষণ : বরিশাল অফিস জানায়, ভাড়াটিয়া আবদুর রশীদ হাওলাদারের স্ত্রী দুই সন্তানের জননী খাদিজা বেগমকে (৩০) ধর্ষণের অভিযোগে বাড়িওয়ালা ব্যবসায়ী দেলোয়ার হোসেনকে (৪০) কলাপাড়া থানা পুলিশ গ্রেফতার করেছে। কলাপাড়া পৌর শহরের কলেজ রোড এলাকায় দেলোয়ারের বাড়ি। তার স্ত্রী একজন স্কুলশিক্ষিকা। স্ত্রীর অনুপস্থিতিতে শুক্রবার রাতে খাদিজাকে রান্না করতে ডেকে নিয়ে সে ধর্ষণ করে। এ ঘটনায় কলাপাড়া থানায় একটি মামলা করা হয়েছে। দেলোয়ারকে আদালতে চালান করা হয়েছে। বর্তমানে সে জেলহাজতে রয়েছে।

শেয়ার করুন