খুলনার জনসভায় জনগণ গণঅনাস্থা জানাবে : তরিকুল

0
88
Print Friendly, PDF & Email

২৯ সেপ্টেম্বর খুলনায় বেগম খালে‌র জিয়ার জনসভায় ১০ লাখেরও বেশি লোকের সমাগম ঘটবে বলে দাবি করেছেন বিএনপির জাতীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য সাবেকমন্ত্রী তরিকুল ইসলাম। তিনি বলেন, সমাবেশে বৃহত্তম গণউপস্থিতির মাধ্যমে ফ্যাসিবাদী সরকারের প্রতি গণঅনাস্থা জানাবে জনগন।
তরিকুল ইসলাম শনিবার দুপুরে যশোর শহরের পৌরকমিউনিটি সেন্টারে দলের খুলনা বিভাগের ১০ জেলার বিএনপির শীর্ষ নেতাদের সাথে মতবিনিময় শেষে সাংবাদিকদের দেয়া ব্রিফিংয়ে একথা বলেন। তিনি বলেন, বর্তমান নির্বাচন কমিশন সরকারের আজ্ঞাবহ। তাদের অধীনে কোন সুষ্ট নির্বাচন প্রত্যাশা করতে পারেনা জনগন। তিনি অবিলম্বে এই আজ্ঞাবহ নির্বাচন কমিশন পূনর্গঠনের দাবি জানান।
তরিকুল ইসলাম বলেন, বরাবরই খুলনা বিভাগ হচ্ছে জাতীয়তাবাদী শক্তির শক্ত ঘাটি। বিগত সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে শত প্রতিকুলতা ও সরকারের পেটোয়া বাহিনীর হস্তক্ষেপের পরও ১৮ দলীয় জোটের প্রার্থীর বিজয় অর্জন করতে সক্ষম হয়েছে। বিশাল এই বিজয়ের পর দলের চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়া খুলনায় আসছেন। এজন্য এ অঞ্চলের মানুষ প্রিয় নেত্রীকে আন্দোলনে উৎসাহিত করতে রাজপথে নেমে আসার জন্য অপেক্ষার প্রহর গুনছে।
তিনি বলেন, বেগম জিয়ার খুলনায় যাওয়ার পথে ওইদিন সংলগ্ন মহাসড়কের দুই ধারে সমুদ্রের উর্মিলার মতো জনগনের ঢেউ আছড়ে পড়বে। নির্দলীয় তত্বাবধায়ক সরকারের দাবির পক্ষে তারা সোচ্চার আওয়াজ প্রিয় নেত্রীকে অনুপ্রানিত করবে। তিনি ২৯ সেপ্টেম্বর খুলনার মহাসমাবেশ সফলে সকলের সর্বাত্মক সহযোগিতা কামনা করেন।
দলের খুলনা বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক মশিউর রহমানের সভাপতিত্বে এসময় সেখানে উপস্থিত ছিলেন, বিএনপি চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা শামসুজ্জামান দুদু, খুলনা মহানগরী বিএনপির সভাপতি ও সংসসদ সদস্য নজরুল ইসলাম মঞ্জু, খুলনা সিটি কর্পোরেশনের মেয়র মনিরুজ্জামান মনি, বিএনপি চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা প্রফেসর মাজেদুল ইসলা, অধ্যক্ষ সোহরাব আলী, মেহেদী আহমেদ রুমি,যশোর বিএনপির যুগ্ম সম্পাদক মিজানুর রহমান খান নগর বিএনপির সভাপতি ও পৌর মেয়র মারুফুল ইসলাম প্রমুখ।

শেয়ার করুন