সাবেক সাংসদ হাবিবুল প্রধান আসামি, গ্রেপ্তার ৭

0
177
Print Friendly, PDF & Email

সাতক্ষীরায় বিএনপির কর্মিসভায় দুই পক্ষের সংঘর্ষে জেলা মত্স্যজীবী দলের সাধারণ সম্পাদক আমানউল্লাহ আমানের (৪০) নিহত হওয়ার ঘটনায় গতকাল শুক্রবার একটি হত্যা মামলা হয়েছে।

জেলা বিএনপির সভাপতি ও সাবেক সংসদ সদস্য হাবিবুল ইসলাম হাবিবকে প্রধান আসামি করে মামলায় আরও ৫৪ জনের নাম উল্লেখ করা হয়েছে। এ ছাড়া অজ্ঞাতনামা আরও ৫০ জনকে আসামি করা হয়েছে। এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে আজ শনিবার সকাল থেকে মামলায় এজাহারভুক্ত নন, এমন সাতজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

নিহত আমানউল্লাহর মা ফাতেমা বেগম বাদী হয়ে মামলাটি  করেন। গতকাল দিবাগত রাত আড়াইটায় সাতক্ষীরা সদর থানায় মামলাটি তালিকাভুক্ত করা হয়।

মামলায় সাতক্ষীরা জেলা যুবদলের সভাপতি আবদুুল হাসান হাদী, সাধারণ সম্পাদক আইনুল ইসলাম, স্বেচ্ছাসেবক দলের আহ্বায়ক তারিকুল ইসলাম, বিএনপির নেতা কামরুল ইসলাম, যুবদলের নেতা মানিক, কামরুজ্জামান, মাসুম বিল্লাহ, শাহিনুজ্জামান, কলারোয়া উপজেলা যুবদলের সভাপতি আবদুল কাদের, কলারোয়া উপজেলা যুবদলের সাবেক সভাপতি আশরাফ হোসেন, শ্যামনগর উপজেলা বিএনপির সভাপতি অহিদুজ্জামান, আশাশুনি উপজেলা বিএনপির সভাপতি ও ইউপি চেয়ারমান রফিকুল ইসলামসহ ৫৪ জনের নাম উল্লেখ করা হযেছে।

গতকাল বেলা ১১টায় সাতক্ষীরা শিল্পকলা একাডেমী মিলানায়তনে জেলা বিএনপির কর্মী সম্মেলনে জেলা বিএনপির সভাপতি হাবিবের পক্ষ সাধারণ সম্পাদক ইফতেখারের পক্ষের ওপর লাঠি, চাইনিজ কুড়াল, দা, রড নিয়ে হামলা চালায়। এতে আমানউল্লাহ নিহত হন। এ সময় জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ ইফতেখার আলী ও শ্রমিক দলের সভাপতি আবদুস সামাদসহ ১২ জন আহত হয়।

সাতক্ষীরা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহজাহান আলী মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, আসামি গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে। ময়নাতদন্ত শেষে আমানের লাশ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হবে।

পুরাতন সাতক্ষীরা পল্লীমঙ্গল স্কুল অ্যান্ড কলেজ মাঠে আমানের জানাজা হবে। পরে পারিবারিক গোরস্থানে তাঁকে দাফন করা হবে।

শেয়ার করুন