বুধবার দেশব্যাপী জামায়াতের বিক্ষোভ

0
67
Print Friendly, PDF & Email

আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালে সাজাপ্রাপ্তদের ভোটার তালিকা থেকে বাদ রাখার সরকারি সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে বুধবার দেশব্যাপী বিক্ষোভের ডাক দিয়েছে জামায়াতে ইসলামী।

মঙ্গলবার এক বিবৃতিতে জামায়াতের ভারপ্রাপ্ত সেক্রেটারি জেনারেল মাওলানা রফিকুল ইসলাম খান এই কর্মসূচি ঘোষণা করেন।

প্রসঙ্গত, সোমবার আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালে সাজাপ্রাপ্তদের ভোটার তালিকা থেকে বাদ রাখার বিধান করে মন্ত্রিসভায় ভোটার তালিকা আইন-২০১৩ (দ্বিতীয় সংশোধনী) এর খসড়ার চূড়ান্ত অনুমোদন দেয়া হয়।

জামায়াত সেক্রেটারি বলেন, ‘সরকার একদলীয় বাকশালী শাসন কায়েমের জন্য দীর্ঘদিন ধরে যে ষড়যন্ত্র করছে, তারই অংশ হিসেবে একদলীয় নির্বাচনের হীন পন্থা অবলম্বন করেছে।’

তিনি দাবি করেন, ‘বাংলাদেশের সর্ববৃহৎ ইসলামী দল হিসেবে জামায়াত যাতে আগামী নির্বাচনে অংশগ্রহণ করতে না পারে, সে জন্য সরকার জামায়াতের শীর্ষ নেতাদেরকে ভোটার তালিকা থেকে বাদ দেয়ার পদক্ষেপ হিসেবে ভোটার তালিকা আইনের খসড়া অনুমোদন করেছে।’

মাওলানা রফিকুল বলেন, ‘বাংলাদেশের কোনো নাগরিককে ভোটার তালিকার বাইরে রাখার সিদ্ধান্ত সম্পূর্ণ সংবিধান ও মানবাধিকার পরিপন্থী। এ সিদ্ধান্তের মাধ্যমে সরকার একদিকে ব্যক্তির মৌলিক অধিকার খর্ব করেছে, অন্যদিকে মানবাধিকার লংঘন ও সংবিধানকে পদদলিত করেছে।’

তিনি দাবি করেন, ‘ট্রা‌ইব্যুনালের দেয়া রায়ের বিরুদ্ধে সুপ্রিমকোর্টে আপিল দায়ের করা হয়েছে। ট্রাইব্যুনালের রায় চূড়ান্ত নয়, আপিল নিষ্পত্তির মাধ্যমে ট্রাইব্যুনালের রায়ের চূড়ান্ত নিষ্পত্তি হবে। সুতরাং এটি একটি চলমান বিচার প্রক্রিয়া। এ বিচার পক্রিয়া চলমান থাকা অবস্থায় কাউকে দোষী হিসেবে বিবেচনা করার সুযোগ নেই।’

জামায়াত সেক্রেটারি বলেন, জামায়াত নেতাদের ওপর অব্যাহত নির্যাতনে তাদের প্রতি জনগণের সহানুভূতি ও সমর্থন ব্যাপকভাবে বৃদ্ধি পেয়েছে। তারা নিজ আসন থেকে বিপুল ভোটে বিজয়ী হওয়ার সম্ভাবনা থাকায় সরকার তাদের নাম ভোটার তালিকা থেকে বাদ রাখার বেআইনি সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে।

নির্বাচনের কমিশনের সমালোচনা করে তিনি বলেন, কমিশন সরকারের আজ্ঞাবহ প্রতিষ্ঠানে পরিণত হয়েছে। তারা সরকারের প্রত্যাশা পূরণের জন্য বিভিন্ন কর্মকাণ্ড পরিচালনা করছে। এই কমিশনের দ্বারা সুষ্ঠু, নিরপেক্ষ ও গ্রহণযোগ্য নির্বাচন সম্ভব নয়।

জামায়াতকে বাইরে রেখে নির্বাচন করার ষড়যন্ত্র জনগণ কখনো বাস্তবায়ন হতে দেবে না বলেও হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেন মাওলানা রফিকুল।

তিনি আরো বলেন, ‘সচিবদের সঙ্গে বৈঠকে বর্তমান সংসদ ও মন্ত্রিপরিষদ বহাল রেখে প্রধানমন্ত্রী নির্বাচন করার যে খায়েস ব্যক্ত করেছেন, জনগণ তা ঘৃণার সঙ্গে প্রত্যাখ্যান করেছে। দেশের মানুষ প্রধানমন্ত্রীর এ দিবাস্বপ্ন কখনো সফল হতে দেবে না।’

শেয়ার করুন