বিদায়কে বেদনাদায়ক করবেন না

0
128
Print Friendly, PDF & Email

সরকারের উদ্দেশ্যে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, আপনাদের সময় শেষ। র‌্যালি বন্ধ করে এ ধরনের ঘটনা ঘটাবেন না। আপনাদের বিদায়কে বেদনাদায়ক করবেন না।

সোমবার বিকেলে রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে ছাত্রদলের সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি। বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানের কারামুক্তির ৬ষ্ঠ বার্ষিকী উপলক্ষে এ সমাবেশের আয়োজন করা হয়।

ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) এ সমাবেশের অনুমতি না দেওয়া এবং সমাবেশে আসার সময় রাজধানীর কয়েক স্থানে পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে ছাত্রদলের নেতাকর্মীদের আহত ও আটক করার ঘটনার দিকে ইঙ্গিত করে সরকারকে হুশিয়ারি দেন মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।
ছাত্রদলের নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে মির্জা ফখরুল বলেন, সরকার ৠালি বন্ধ করলেই বন্ধ করা যাবে না। জেগে উঠতে হবে, সোজা হয়ে দাঁড়াতে হবে।

ছাত্রদলকে আন্দোলনের ভ্যানগার্ড হিসেবে তৈরি করারও আহ্বান জানান তিনি।

ফখরুল আরও বলেন, নতুন ধারার রাজনীতি তৈরি করতে হবে। তারেক রহমান নতুন ধারার রাজনীতি তৈরি করতে চেয়েছিলেন বলেই জয় যেদিন বাংলাদেশে ফিরে এসেছিলেন, তাকে ফুলের তোড়া পাঠিয়েছিলেন। বলেছিলেন, আসুন নতুন ধারার রাজনীতি শুরু করি। উন্নত দেশ গড়তে একসঙ্গে কাজ করি। অথচ জয় দেশে এসে নোংরা ভাষায় কথা বলেছেন, তারেক রহমানের বিরুদ্ধে মিথ্যাচার করেছেন। দেশের মানুষ এটা প্রত্যাশা করেনি।

বিকেল সাড়ে তিনটার দিকে শুরু হওয়া সমাবেশ শেষ হয় সন্ধ্যা ৬টার দিকে। সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন ছাত্রদলের সভাপতি আব্দুল কাদের ভূঁইয়া জুয়েল। বক্তব্য রাখেন বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা শামসুজ্জামান খান দুদু, ফজলুল হক খান মিলন, শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানী এমপি, আসাদুজ্জামান খান রিপন, আবুল খায়ের ভূঁইয়া, এবিএম মোশাররফ হোসেন প্রমুখ।

উল্লেখ্য, ডিএমপি’র অনুমতি না পাওয়া সত্ত্বেও পূর্বঘোষিত সমাবেশটি করে ছাত্রদল। ঢাকা মহানগরের বিভিন্ন থানা-ওয়ার্ড, কলেজ বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রদলের নেতাকর্মীরা মিছিল সহকারে সমাবেশে যোগ দেন।

তবে সমাবেশে আসার সময় রাজধানীর কয়েক স্থানে পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষ বেধে যায় ছাত্রদলের। বিজয়নগর, মৎস্যভবন, জাতীয় প্রেসক্লাব ইত্যাদি এলাকায় এই সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এসব সংঘর্ষে ছাত্রদলের বেশ ক’জন কর্মী আহত হন। মৎস্যভবন এলাকা থেকে ১৭ জন, বিজয়নগর থেকে ৮ জন ও প্রেসক্লাব এলাকা থেকে ৪ জনকে আটক করে পুলিশ।

এদিকে নিরাপত্তা ও যানজটের কথা চিন্তা করে বিএনপির প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে ছাত্রদলকে রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে সমাবেশের অনুমতি দেওয়া হয়নি বলে জানিয়েছে ডিএমপি। গত ২৮ আগস্ট ছাত্রদলের পক্ষ থেকে বিএনপির ৩৫তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে সোমবার বিকেলে (২ সেপ্টেম্বর) সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে সমাবেশ করার অনুমতি চাওয়া হয়েছিল।

শেয়ার করুন