উদ্ধার হওয়া কঙ্কাল হেফাজত কর্মীদের, দাবি ইসলামী ঐক্যজোটের

0
100
Print Friendly, PDF & Email

মাতুয়াইলের ডাম্পিং স্টেশন থেকে উদ্বার হওয়া কঙ্কাল, মাথার খুলি ও হাড়গোড় হেফাজতে ইসলামের কর্মীদের বলে দাবি করেছে ইসলামী ঐক্যজোট।

শনিবার সংগঠনটির জরুরি বৈঠকে এ দাবি করা হয়। ইসলামী ঐক্যজোট দাবি করেছে বলেছে, হেফাজতের কর্মীদের লাশ গুম করার যে অভিযোগ তোলা হয়েছে উদ্ধার হওয়া এ কঙ্কালের মাধ্যমে এ অভিযোগ প্রকট আকার ধারণ করলো।

লালবাগ কার্যালয়ে এ জরুরি সভার আয়োজন করা হয়। সংগঠনটির চেয়ারম্যান মাওলানা আবদুল লতিফ নেজামী এতে  সভাপতিত্ব করেন।

সংগঠনটির পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে, ‘শাপলা চত্বরে হেফাজতে ইসলামের নেতাকর্মীদের ওপর চালানো হত্যাযজ্ঞের পর সরকার পরিকল্পিতভাবেই লাশ গুম করেছে। মাতুয়াইল থেকে উদ্ধার হওয়া এসব কঙ্কাল হেফাজত কর্মীদের।’

লতিফ নেজামী বলেন, “আমরা জোর দিয়ে বলতে পারি, একই সাথে একদিনে এতগুলো লাশ একত্রিত করে ময়লার স্তুপে নিক্ষেপের বিষয়টি পরোক্ষভাবে হেফাজতের কর্মীদের লাশ গুমের ঘটনাকে ইঙ্গিত করে।

৫ মে মধ্যরাতে হেফাজতের অবস্থান কর্মসূচিতে চালানো গণহত্যার পর হেফাজতে ইসলামসহ দেশি-বিদেশি বিভিন্ন মহল ময়লার গাড়িতে করে সংরক্ষিত এলাকায় লাশ গুমের অভিযোগ উঠে।

একই সাথে সংগঠনের পক্ষ থেকে দাবি করা হয়েছে, ‘নিরপেক্ষ তদন্ত কমিশন’ গঠন করে উদ্ধারকৃত অজ্ঞাতসংখ্যক লাশের কঙ্কাল, মাথার খুলি ও হাড়গোড় এর ডিএনএ টেস্ট করে প্রকৃত রহস্য উদঘাটন করা হোক।

নেতারা বলেন,”যদি ভিন্ন ভিন্ন দিন তাদের হত্যা করা হতো, তাহলে একেক জায়গায় লাশগুলো পাওয়া যেতো। তাই এ কথা নিঃসন্দেহে বলা যায়, লাশগুলো একই দিনে ময়লার ডাম্পিং স্টেশনে ফেলা হয়।”

মহাসচিব মুফতী ফয়জুল্লাহ, ভাইস চেয়ারম্যান মাওলানা আবুল হাসানাত আমিনী, যুগ্ম-মহাসচিব মুফতি মুহাম্মদ তৈয়্যব, সহকারী মহাসচিব মাওলানা আহলুল্লাহ ওয়াছেল এবং  মাওলানা মাঈনুদ্দিন রুহী উপস্থিত ছিলেন।

শেয়ার করুন