চূড়ান্ত প্রতিবেদনে রনির নারাজি

0
105
Print Friendly, PDF & Email

ইনডিপেনডেন্ট টেলিভিশনের অন্যতম মালিক সালমান এফ রহমান ও দুই সাংবাদিকের বিরুদ্ধে মামলায় পুলিশের দেয়া চূড়ান্ত প্রতিবেদনের বিষয়ে আদালতে আপত্তি জানিয়েছেন সাংসদ গোলাম মাওলা রনি।

বুধবার ঢাকার মুখ্য মহানগর হাকিম আদালতে রনির আইনজীবী এই ‘নারাজি’ আবেদন করেন।

ওই আবেদনের ওপর শুনানি শেষে আগামী ২৮ নভেম্বর আদেশের দিন রেখেছেন মহানগর হাকিম আসাদুজ্জামান নূর।

সাংসদ রনিকে এই আবেদনের শুনানির জন্য সকালে কারাগার থেকে আদালতে নিয়ে আসা হয়।

অনুসন্ধানী প্রতিবেদনের তথ্য সংগ্রহের জন্য গত ২০ জুলাই পল্টনে রনির কার্যালয়ে গিয়ে মারধরের শিকার হন ইনডিপেনডেন্ট টেলিভিশনের প্রতিবেদক ইমতিয়াজ মোমিন ও ক্যামেরা পার্সন মহসীন মুকুল। ভিডিওচিত্রে দেখা যায়, সংসদ সদস্য রনি নিজেই প্রতিবেদক ও ক্যামেরাপার্সনের ওপর চড়াও হয়ে লাথি মারছেন।

ঘটনার পর ইনডিপেনডেন্ট টেলিভিশন কর্তৃপক্ষ রনিকে আসামি করে শাহবাগ থানায় হত্যাচেষ্টার অভিযোগে একটি মামলা করে। ওই দুই সংবাদিকসহ ইনডিপেনডেন্ট টেলিভিশনের অন্যতম মালিক ব্যবসায়ী সালমান এফ রহমানকে আসামি করে রনিও পাল্টা মামলা করেন।

রনি ২১ জুলাই বিচারিক আদালতে আত্মসমর্পণ করে জামিন নিলেও টেলিফোনে হুমকির অভিযোগে ইনডিপেন্ডেন্ট কর্তৃপক্ষ একটি জিডি করার পর গত ২৪ জুলাই জামিন বাতিল করে তাকে গ্রেপ্তারের নির্দেশ দেয় আদালত। এরপর গোয়েন্দা পুলিশ তাকে গ্রেপ্তার করলে আদালত এই সাংসদকে কারাগারে পাঠায়।

এরপর গত ৩০ জুলাই রনির দায়ের করা মামলায় চূড়ান্ত প্রতিবেদন দিয়ে সালমান এফ রহমান ও দুই সাংবাদিককে অব্যাহতি দেয়ার আবেদন করে শাহবাগ থানা পুলিশ।

প্রতিবেদনে বলা হয়, সাংসদ রনি হত্যাচেষ্টার যে অভিযোগ এনেছেন, তদন্তে তার সত্যতা পাওয়া যায়নি। মিথ্যা অভিযোগে মামলা করায় তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ারও আবেদন করে পুলিশ।

শাহবাগ থানার ওই প্রতিবেদনে নারাজি জানিয়ে রনির আইনজীবী কবির হোসাইন বলেন, “নিয়ম অনুযায়ী বাদীকে নোটিস না করে, ঠিকমতো ঘটনার তদন্ত ছাড়াই মাত্র সাত দিনে ওই প্রতিবেদন দিয়েছে পুলিশ, যা আইনের দৃষ্টিতে বৈধ নয়।” 

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা আসামিদের পক্ষ নিয়েছেন বলেও রনির আবেদনে উল্লেখ করা হয়।

শুনানি শেষে হাকিম ২৮ নভেম্বর এ বিষয়ে আদেশের দিন রাখেন। তিনি রনির মামলায় আবারো তদন্তের নির্দেশ দিতে পারেন, অথবা তার আবেদন নাকচ করে দিতে পারেন।

শেয়ার করুন