পুলিশের ওপর ফের মারমুখী শিবির

0
56
Print Friendly, PDF & Email

ফের সহিংস ও মারমুখী হয়ে উঠছে ইসলামী ছাত্রশিবির। জামায়াতের নিবন্ধন পুনর্বহাল ও আটক নেতা-কর্মীদের মুক্তির দাবিতে গতকাল রাজধানীসহ সারা দেশে বিক্ষোভ কর্মসূচি পালন করে শিবির। কিন্তু বিক্ষোভের নামে তারা দেশের বিভিন্ন স্থানে পুলিশের ওপর হামলা ও অস্ত্র ছিনতাই, থানা ঘেরাও, অগ্নিসংযোগ ও ভাঙচুরে জড়িয়ে পড়ে।এদিকে নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জে নাশকতার জন্য বোমা তৈরির সময় বিস্ফোরণে ইসমাইল হোসেন (২৬) নামে এক শিবির কর্মীর মৃত্যু হয়েছে। চট্টগ্রামে শিবিরের হামলায় পুলিশের তিন সদস্য আহত হয়েছেন। শিবিরের সহিংস হামলা থেকে এ দিন পুলিশসহ সাধারণ মানুষ-কেউই বাদ যায়নি। সহিংসতার অভিযোগে পুলিশ শতাধিক ব্যক্তিকে গ্রেফতার করে। মহাখালী এলাকায় বিক্ষোভ মিছিলসহ পুলিশের ওপর হামলা চালায় জামায়াত-শিবির। এ সময় তারা ৬টি ককটেল বিস্ফোরণ ঘটায়। এতে দুই পুলিশ সদস্যসহ সাতজন আহত হন।এদিকে গত শনিবার রাতে রাজধানীর উত্তরায় নাশকতার পরিকল্পনার গোপন বৈঠকে হানা দিয়ে জামায়াত-শিবিরের ১০ নেতা-কর্মীকে গ্রেফতার করে পুলিশ।পুলিশের একজন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা জানান, রাজধানীতে পুলিশের ব্যাপক নিরাপত্তার কারণে শিবির বড় কোনো নাশকতা বা সহিংতা করতে পারেনি। কিন্তু দেশের বাইরে শিবির তাদের তাণ্ডব অব্যাহত রেখেছে। তাদের কর্মসূচি বাস্তবায়নে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী বাধা দিলেই সহিংস হয়ে পড়ছে শিবির। তারা তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে পুলিশের ওপর হামলা, অগ্নিসংযোগ, ভাঙচুর, ককটেল ও বোমা বিস্ফোরণের মতো ঘটনা ঘটাচ্ছে।গতকাল সকাল সোয়া ৯টার দিকে কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে মহাখালী রেলক্রসিং এলাকায় বিক্ষোভ মিছিল করেছে ঢাকা মহানগর জামায়াত। পুলিশ তাদের বাধা দিলে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়াসহ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এ সময় জামায়াত কর্মীরা টহলরত পুলিশের গাড়িতে হামলা ও ভাঙচুরের উদ্দেশে ইটপাটকেল ছুড়ে এবং ৬টি ককটেল বিস্ফোরণ ঘটায়। এতে পুলিশের দুই সদস্যসহ সাতজন আহত হয়।পুলিশের তেজগাঁও বিভাগের ডিসি বিপ্লব কুমার সরকার জানান, জামায়াত-শিবির নেতা-কর্মীরা বনানী কাঁচাবাজার থেকে মিছিল বের করে। পরে তারা মহাখালী মোড় হলে শাহিন কলেজের দিকে যাওয়ার চেষ্টা করে। এ সময় পুলিশ বাধা দিলে তাদের সঙ্গে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। জামায়াত-শিবিরের ছোড়া ইটের আঘাতে এক এসআইসহ পুলিশের দুই সদস্য আহত হয়েছেন। ঘটনাস্থল থেকে দুই শিবির কর্মীকে আটক করা হয়েছে। তারা হলো আলাউদ্দিন ও হাফেজ রাব্বানী।উত্তরা পশ্চিম থানা জামায়াতে ইসলামীর আমির অ্যাডভোকেট জাকির হোসেনসহ সংগঠনটির ১০ রুকন সদস্যকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গত শনিবার রাতে উত্তরার ৫ নম্বর সেক্টরের ৩/এ নম্বর সড়কের ৫৬ নম্বর বাড়ির চতুর্থ তলায় ডা. আবদুল মজিদ মিয়ার বাসা থেকে জামায়াতের মজলিসে সূরার গোপন বৈঠক চলাকালে তাদের গ্রেফতার করা হয়। আমির ছাড়া বাকি সদস্যরা হলেন উত্তরা ৩ নম্বর সেক্টর সভাপতি আবুল খায়ের, ২ নম্বর সেক্টর সভাপতি ফিরোজ আলম, ১৩ নম্বর সেক্টর সাধারণ সম্পাদক মনির হোসেন, ১২ নম্বর সেক্টর সাধারণ সম্পাদক নূর আলম, ১০ নম্বর সেক্টর সভাপতি মনিরুল ইসলাম, ৭ নম্বর সেক্টর সাধারণ সম্পাদক আবু সাঈদ, ৩ নম্বর সেক্টর সাধারণ সম্পাদক মাহবুবুর রহমান, ১৩ নম্বর সেক্টর সভাপতি আতিক উল্লাহ ও ১১ নম্বর সেক্টর সভাপতি সালেহ উদ্দিন। এ সময় তাদের কাছ থেকে বিপুল পরিমাণ লিফলেট ও জিহাদি বই জব্দ করা হয়। আটক ব্যক্তিদের গতকাল ১০ দিনের রিমান্ডের আবেদন জানিয়ে আদালতে পাঠালে আদালত ৫ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করে। এছাড়া বিক্ষোভের নামে সারা দেশে সহিংস আচরণ করেছে শিবির নেতা-কর্মীরা আমাদের নিজস্ব প্রতিবেদক ও প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর:চট্টগ্রাম: চট্টগ্রামে পুলিশ সদস্যদের বহনকারী পিকআপ ভ্যানে হাতবোমা নিক্ষেপ ও পুলিশের ওপর হামলা করেছে জামায়াত-শিবির। তাদের হামলায় তিন পুলিশ সদস্য এবং এক সংবাদ কর্মী আহত হয়েছেন। এসময় জামায়াত-শিবির প্রায় দশটি গাড়ি ভাঙচুর করে। গতকাল বেলা পৌনে ১১ টায় পাঁচলাইশ থানাধীন বাদুরতলা এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। পরে পুলিশ অভিযান চালিয়ে জামায়াত শিবির সন্দেহে ৬৬ জনকে আটক করেছে পুলিশ।  নোয়াখালী : কোম্পানিগঞ্জ উপজেলার করালিয়া গ্রামে  গতকাল ভোরে বোমা তৈরির সময় বিস্ফোরণে ইসমাইল হোসেন (২৬) ও অজ্ঞাত ১ জন আহত হয়। গুরুতর আহত অবস্থায় পুলিশ ইসমাইলকে উদ্ধার করে ভোরেই নোয়াখালী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সে মারা যায়।

শেয়ার করুন