গণআন্দোলনে ভীত হয়ে সরকার গণহত্যা চালাচ্ছে : জামায়াত

0
105
Print Friendly, PDF & Email

ঢাকা, ১৪ আগস্ট: বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর কেন্দ্রীয় কর্মপরিষদ সদস্য ও ঢাকা মহানগরীর সহকারী সেক্রেটারি মঞ্জুরুল ইসলাম ভূঁইয়া বলেছেন, সরকার গণআন্দোলনে ভীত হয়ে এখন জনগণের উপর জুলুম-নির্যাতনের মাত্রা বাড়িয়ে দিয়েছে। তারা জনতার গণতান্ত্রিক কর্মসূচিতে নির্বিচারে গণহত্যা চালিয়ে চালিয়ে শত শত মানুষকে হত্যা করেছে। সে ধারাবাহিকতায় যাত্রাবাড়ীতে শিবির নেতা খলিলুর রহমানকে নির্মতভাবে হত্যা করা হয়েছে।
বুধবার রাজধানীর কোতয়ালীতে সরকারের জুলুম, নির্যাতন, নিপীড়ন, গণগ্রেফতার ও জামায়াতকে নিশ্চিহ্ন করার ষড়যন্ত্রের প্রতিবাদে ৪৮ ঘন্টার লাগাতর হরতালের সমর্থনে এক বিক্ষোভ পরবর্তী সমাবেশে একথা বলেন তিনি। বিক্ষোভ মিছিলটি বাবুবাজার ব্রিজ থেকে শুরু হয়ে নগরীর বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ করে ইসলামপুরে গিয়ে সমাবেশের মাধ্যমে শেষ হয়।
মঞ্জুরুল ইসলাম বলেন, জনগণের গণতান্ত্রিক আন্দোলনে গুলি চালিয়ে-শহীদ করে সরকারের শেষ রক্ষা হবে না। জনগণ জালিম সরকারের বিরুদ্ধে স্বতঃস্ফূর্ত হরতাল পালন করে সরকারের প্রতি গণঅনাস্থা জানিয়েছে। তারা আর এক মুহূর্তও এ সরকারকে ক্ষমতায় দেখতে চায় না বলে মন্তব্য করেন তিনি।
জুলুম, নির্যাতন, গণগ্রেফতার, গণহত্যা ও জামায়াত নির্মূলের ষড়যন্ত্র বন্ধ করে অবিলম্বে দলের শীর্ষ নেতাদের নিঃশর্ত মু্িক্ত দাবি করেন জামায়াতের এই নেতা।
সরকার জনতার দাবি মানতে ব্যর্থ হলে আওয়ামী লীগের রাজনৈতিক অপমৃত্যু হবে বলে সরকারকে সতর্ক করে দিয়ে মঞ্জুরুল ইসলাম ভূঁইয়া বলেন, সরকার রাজনৈতিক প্রতিপক্ষকে রাজনৈতিক ও আদর্শিকভাবে মোকাবেলা করতে ব্যর্থ হয়ে বিরোধী দলের উপর দলন-পীড়ন চালাচ্ছে। তারা জামায়াত ধ্বংসের নীলনকশার অংশ হিসেবেই কথিত মানবতাবিরোধী অপরাধের বিচারের নামে শীর্ষ নেতৃবৃন্দের বিরুদ্ধে বানোয়াট ও কল্পিত অভিযোগ এনে তাদেরকে হত্যা করার ষড়যন্ত্র করা হচ্ছে।
স্বতঃস্ফূর্ত হরতাল পালন করায় সকল স্তরের জনতার প্রতি অভিনন্দন জানান তিনি।
এদিকে হরতালের সমর্থনে বুধবার লালবাগ, বংশাল, কামরাঙ্গীরচর, কাফরুল, ভাষানটেক হাজারীবাগ, ধানমন্ডি ও ডেমরা এলাকায় মিছিল করেছে জামায়াত শিবিরের নেতাকর্মীরা।

শেয়ার করুন