পেকুয়ায় গ্রামবাসীর সংঘর্ষ, শ্রীবরদীতে ব্যবসায়ী হোসেনপুরে পৌর কাউন্সিলরকে পিটিয়ে জখম : বিরামপুর পৌরসভার সচিব লাঞ্ছিত

0
174
Print Friendly, PDF & Email

কক্সবাজারের পেকুয়ায মাছ ধরা কেন্দ্রে করে দু’পক্ষের মধ্যে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষে মহিলাসহ উভয়পক্ষের অন্তত ১২ ব্যক্তি আহত হয়েছে। শেরপুরের শ্রীবরদীতে চাঁদা না দেয়ায় সন্ত্রাসীদের হামলায় কাঠ ব্যবসায়ী ও এক গৃহবধূ গুরুতর আহত হয়েছেন। কিশোরগঞ্জের হোসেনপুর পৌরসভার ৯নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মো. খায়রুল ইসলামকে গত মঙ্গলবার রাতে পৌর হিসাবরক্ষক এমদাদুল হক পিটিয়ে আহত করেছে। আমাদের প্রতিনিধিদের পাঠানো খবরে :
পেকুয়ায় সংঘর্ষে আহত ১২ : কক্সবাজারের পেকুয়ায মাছ ধরা কেন্দ্র করে দু’পক্ষের মধ্যে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষে মহিলাসহ উভয়পক্ষের অন্তত ১২ ব্যক্তি আহত হয়েছে। তাদের মধ্যে গুরুতর আহত ৩ জনকে চমেক হাসপাতাল এবং অন্যদের পেকুয়া হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। গতকাল উপজেলার রাজাখালী ইউনিয়নের সুন্দরীপাড়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।
স্থানীয় এলাকাবাসী জানায়, মাছ ধরাকে কেন্দ্র করে গতকাল রাজাখালী ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান শাহাদাত আলী গং ও হাজী আবদুল মালেকের ছেলে আনসারুল ইসলাম টিপু গংয়ের মধ্যে কথা কাটাকাটির একপর্যায়ে সংঘর্ষ বাধে। পেকুয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মঈন উদ্দিন আহমদ বলেন, রাজাখালীতে সংঘর্ষের ঘটনায় এখনও কেউ থানায় অভিযোগ দেননি। অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে বলেও জানান তিনি।
শ্রীবরদীতে সন্ত্রাসী হামলায় ব্যবসায়ীসহ দু’জন আহত : শেরপুরের শ্রীবরদীতে চাঁদা না দেয়ায় সন্ত্রাসীদের হামলায় কাঠ ব্যবসায়ী ও এক গৃহবধূ গুরুতর আহত হয়েছেন। গত সোমবার উপজেলার কর্ণঝোড়া বাজারের পাশে মাটিফাটা জিএম উচ্চ বিদ্যালয় সংলগ্ন পাকা সড়কে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনার পর থেকে আহত কাঠ ব্যবসায়ী আজাদ হোসেন ও তার ভাগিনী গৃহবধূ ছাহেরা খাতুন উপজেলা সদর হাসপাতালে চিকিত্সাধীন রয়েছেন। ঘটনাটি নিয়ে থানায় একটি অভিযোগ দাখিল করা হয়েছে। এ ঘটনার পর থেকে ওই সন্ত্রাসীদের ভয়ে এলাকায় আতঙ্ক বিরাজ করছে।
হোসেনপুরে পৌর কাউন্সিলরকে পিটিয়ে আহত : কিশোরগঞ্জের হোসেনপুর পৌরসভার ৯নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মো. খায়রুল ইসলামকে গত মঙ্গলবার রাতে পৌর হিসাবরক্ষক এমদাদুল হক পিটিয়ে আহত করেছে। সূত্র জানায়, মঙ্গলবার দুপুরে পৌর কার্যালয়ে কাউন্সিলর খায়রুল ইসলাম ও হিসাবরক্ষক এমদাদুল হকের সঙ্গে ঠিকাদারি কাজের ভাগবাটোয়ারা নিয়ে কথা কাটাকাটি ও দস্তাদস্তি শুরু হয়। পরে পৌর মেয়রসহ কাউন্সিলররা বিষয়টি আপস মীমাংসার চেষ্টা করেন। কাউন্সিলর খায়রুল ইসলাম পৌর কার্যালয় থেকে বের হতে ওঁেপতে থাকা হিসাবরক্ষক ভাড়াটিয়া সন্ত্রাসীদের নিয়ে লোহার রড দিয়ে পিটিয়ে তাকে গুরুতর আহত করে। পরে স্থানীয় লোকজন কাউন্সিউলরকে উদ্ধার করে হোসেনপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করে। ঘটনার পর থেকেই হিসাবরক্ষক এমদাদুল হক পালিয়েছে।
মেয়র মুহাম্মদ মাহবুবুর রহমান জানান, হিসাবরক্ষক এমদাদুল হকের ব্যাপারে বিধিমোতাবেক ব্যবস্থা নেয়া হবে।
বিরামপুর পৌরসভার সচিব লাঞ্ছিত : দিনাজপুরের বিরামপুর পৌরসভার কয়েকজন কাউন্সিলরের হাতে একই পৌরসভার সচিব শেরাফুল ইসলাম তার অফিসকক্ষে লাঞ্ছিত হয়েছেন। গতকাল বেলা ২টার দিকে বিরামপুর পৌর ভবনে এ ঘটনা ঘটে। এ সময় পাশেই মেয়র অফিসে পৌর মেয়র আজাদুল ইসলাম উপস্থিত ছিলেন। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, ওয়ার্ড কাউন্সিলর আরেফুল ইসলাম হঠাত্ উত্তেজিত হয়ে সচিব শেরাফুল ইসলামের শার্টের কলার ধরে দেয়ালে ধাক্কা দেন এবং সচিবের অফিসের টয়লেটে তালা লাগান। এ সময় কাউন্সিল মোশারফ হোসেন চৌধুরী চেয়ার তুলে এবং আরেক কাউন্সিলর জোবায়দুল ইসলাম সচিব শেরাফুল ইসলামকে মারধর করেন।

শেয়ার করুন