বাস্তবতা ভিন্ন: ফখরুল

0
102
Print Friendly, PDF & Email

আগামী নির্বাচনের সম্ভাব্য ফলাফল নিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বক্তব্য নাকচ করেছে বিএনপি।

দলের ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর সোমবার সাংবাদিকদের বলেন, প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্যের সঙ্গে বাস্তবতার কোনো মিলই নেই।

“দলের নেতা-কর্মীদের চাঙ্গা করতে প্রধানমন্ত্রী এরকম বক্তব্য দিয়েছেন। আমরা মনে করি- এই বক্তব্যের মাধ্যমে তিনি দলের নেতা-কর্মীদের হারিয়ে যাওয়া উদ্যম ফিরিয়ে আনার চেষ্টা করছেন। কিন্তু এতে কোনো কাজ হবে না।”

জনগণ আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন বর্তমান সরকারের দিক থেকে  মুখ ফিরিয়ে নিয়েছে বলেও মন্তব্য করেন বিএনপির মুখপাত্র ফখরুল।

রোববার এক অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, তার কাছে জরিপের তথ্য আছে যে আওয়ামী লীগ আবারো ক্ষমতায় আসতে পারবে।

গত ২৩ জুলাই আওয়ামী যুবলীগের এক ইফতার অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রীর ছেলে সজীব ওয়াজেদ জয়ও একই কথা বলেন।

জয়ের বক্তব্যের সমালোচনায় বিএনপি নেতারা বলেন, নির্বাচন নিয়ে ওই বক্তব্যের মধ্য দিয়ে জয় কূটিল ষড়যন্ত্রের ইংগিত দিয়েছেন। 

এর জবাবে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা রোববার বলেন, ‘‘ জয় যখন বললো, আমি পোল করে এ তথ্য পেয়েছি। সেটাকে কিভাবে বিকৃত করে- ওটাকে বলা হয়েছে ষড়যন্ত্র করে ক্ষমতায় ফিরে আসা যায়।”

এ বিষয়ে প্রতিক্রিয়া জানতে চাইলে মির্জা ফখরুল বলেন, পাঁচ সিটি কর্পোরেশনের নির্বাচনে ক্ষমতাসীনদের পরাজয়ই প্রমাণ করে, এই সরকারের প্রতি জনগণের কোনো আস্থা নেই। দেশের মানুষ আর তাদের ক্ষমতায় দেখতে চায় না।

“আমরা মনে করি, প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্যের সঙ্গে বাস্তবতার কোনো মিল নেই। বিভিন্ন জনমত জরিপের ফলাফলে দেখা যাচ্ছে-  আওয়ামী লীগের ধস নেমেছে। এখন দলীয় নেতা-কর্মীদের হারিয়ে যাওয়া উদ্যম ফিরিয়ে আনতে প্রধানমন্ত্রী যতো চেষ্টাই করুন, কাজ হবে না।’’

বিএনপি বার বার ষড়যন্ত্র  করে ক্ষমতায় গেছে- প্রধানমন্ত্রীর এমন বক্তব্যের সমালোচনায় ফখরুল বলেন, “ আমরা সব সময় জনগণের সমর্থন নিয়ে ক্ষমতায় গেছি। জনগণই আমাদের শক্তি। প্রধানমন্ত্রী যা বলেছেন- তা সঠিক নয়।”

রাজধানীর বসুন্ধরা আবাসিক এলাকার অ্যাপেলো হাসপাতালে চিকিৎসাধীন জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রদল কর্মী সিরাজুল ইসলামকে দেখতে এসে সাংবাদিকদের সঙ্গে এসব বিষয়ে কথা বলেন মির্জা ফখরুল।

বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব চিকিৎসকদের কাছে সিরাজের খোঁজ-খবর নেন এবং তার চিকিৎসার বিষয়ে জানতে চান।

ছাত্রদলের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল হক নাসির, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্র দলের সভাপতি ফয়সল আহমেদ সজল, যুগ্ম সম্পাদক খন্দকার আল আশরাফ মামুন, সাংগঠনিক সম্পাদক মহসিন মিয়া এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

গত ২৫ জুলাই পুরান ঢাকায় জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের কাছে পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষের সময় গুলিবিদ্ধ হন সিরাজুল।

তাকে দেখার পর অ্যাপেলো হাসপাতালের মূল ফটকের সামনে মির্জা ফখরুল সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন।

সরকারের সমালোচনা করে তিনি বলেন, “তারা (সরকার) বিরোধী দলের নেতা-কর্মীদের ওপর নিপীড়ন নির্যাতন চালিয়ে যাচ্ছে। হাজার হাজার মামলা দিচ্ছে।”

এভাবে সরকার বিএনপিকে দুর্বল করে একদলীয় নির্বাচনের পাঁয়তারা করছে বলেও ফখরুল অভিযোগ করেন।

শেয়ার করুন