কারামুক্তির শেষ চেষ্টাতেও ব্যর্থ সঞ্জয়

0
62
Print Friendly, PDF & Email

বাড়িতে অবৈধ আগ্নেয়াস্ত্র রাখার দায়ে পুনের ইয়েরাওয়াড়া কারাগারে সাজা খাটছেন ‘মুন্নাভাই’ তারকা সঞ্জয় দত্ত, শাস্তির রায় পুনর্বিবেচনার শেষ চেষ্টা হিসেবে তিনি কিউরেটিভ পিটিশন করেছিলেন। কিন্তু সম্প্রতি তা খারিজ করে দিয়েছেন ভারতের সর্বোচ্চ আদালত। এতে করে কারামুক্তির আর কোনো পথই খোলা রইল না সঞ্জয়ের সামনে।
নিয়ম অনুযায়ী রিভিউ পিটিশন খারিজ হয়ে যাওয়ার পর সঞ্জয় কিউরেটিভ পিটিশন করেছিলেন। কিন্তু কয়েকজন বিচারক মিলে বিভিন্ন তথ্য-উপাত্ত যাচাই-বাছাইয়ের পর সঞ্জয়ের কিউরেটিভ পিটিশন খারিজ করে দেওয়ার সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত করেন। সম্প্রতি এক খবরে এ তথ্য জানিয়েছে ‘হিন্দুস্তান টাইমস’।
বাড়িতে অবৈধ অস্ত্র রাখার দায়ে ২০ বছর আগের এক মামলায় গত ২১ মার্চ সঞ্জয়কে পাঁচ বছরের কারাদণ্ডে দণ্ডিত করেন ভারতের সর্বোচ্চ আদালত। এই অস্ত্র মামলায় আগে দেড় বছর সাজা খেটেছেন সঞ্জয়। আদালতের রায় অনুযায়ী আরও সাড়ে তিন বছর জেলের ঘানি টানতে হবে তাঁকে। তবে রায় হওয়ার পর থেকেই নির্ধারিত সময়ের আগে মুক্তি পাওয়ার সব রকম চেষ্টাই তিনি করেছেন। কিন্তু কোনো লাভ হয়নি।
১৯৯৩ সালের মার্চ মাসে মুম্বাইয়ে ধারাবাহিকভাবে বেশ কয়েকটি স্থানে ১২টি শক্তিশালী বোমা বিস্ফোরিত হয়েছিল। সেসময় ওই ভয়াবহ বিস্ফোরণে মারা গিয়েছিলেন ২৫৭ জন। আহত হয়েছিলেন ৭০০ জনেরও বেশি।

ভয়াবহ ওই সহিংসতার পর বিস্ফোরণ মামলার সঙ্গে সম্পৃক্ততা এবং বাড়িতে অবৈধ অস্ত্র রাখার অভিযোগে ১৯৯৩ সালের এপ্রিলে সঞ্জয়কে গ্রেপ্তার করে মুম্বাই পুলিশ। ২০০৬ সালে সঞ্জয়ের বিরুদ্ধে সন্ত্রাসী হামলার সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগটি বাদ দেওয়া হয়। সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডে যুক্ত থাকার অভিযোগ থেকে নিষ্কৃতি পেলেও সঞ্জয়কে অবৈধ অস্ত্র রাখার অপরাধে পাঁচ বছরের কারাদণ্ডে দণ্ডিত করেছেন ভারতের সর্বোচ্চ আদালত।

শেয়ার করুন