১৮ হিজড়ার কারাবাস নিয়ে বিপাকে কর্তৃপক্ষ

0
74
Print Friendly, PDF & Email

কাশিমপুর কারাগারের তিন নম্বর (মহিলা) ইউনিটের কারা কর্তৃপক্ষ বন্দি থাকা হিজড়াদের নিয়ে বিপাকে পড়েছেন৷ গত বৃহস্পতিবার বিকালে দ্রম্নত বিচার আইনের মামলায় আটক ১৮ হিজড়াকে আনা হয়েছে ওই ইউনিটে৷ হিজড়াদের কাশিমপুর কারাগারে আনার পর তারা ব্যাপক হৈ-হলস্না করতে থাকে৷

হিজড়াদের পরনে ছিল শাড়ী৷ কিন্তু তাদের আচরণ ছিল পুরুষের মতো৷ প্রথমে তাদের নিয়ে রাখা হয়েছিল মহিলা কয়েদীদের সঙ্গে৷ সেখানে তারা হৈ হলস্না করায় পরে তাদের পাঁচটি আলাদা সেলে স্থানানত্মর করা হয়৷ এরপর থেকে তারা অনেকটাই শানত্ম হয়ে পড়েছে৷

কাশিমপুর মহিলা কারাগারের জেলার আমজাদ হোসেন ডন জানান, প্রথমে তারা একটু অস্বসত্মিতে থাকলেও তাদের খাবার এবং থাকার জায়গা নিশ্চিত করার পর তারা শানত্ম হয়ে যায়৷ ওই হিজড়াদের কারাগারের নারী ওয়ার্ড থেকে পরে ভিন্ন ৫টি ছোট সেলে রাখা হয়৷ আগে কখনও কারাগারে আটক না থাকলেও তারা এখন অত্যনত্ম স্বাভাবিকভাবে অবস্থান করছে৷

জানা গেছে, গত বুধবার তাদেরকে চাঁদাবাজির অভিযোগে গ্রেপ্তার করা হয়৷ ঢাকার মিরপুরের সেনপাড়া পর্বতায় অবস্থিত বেসিক শার্ট লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোহাম্মদ হুমায়ুন কবীর তাদের নামে চাঁদাবাজির মামলা দায়ের করেন৷ হিজড়ারা গ্রেপ্তার হবার পর তাদের মধ্যে নারী পোশাক পরিহিত অনেকেরই আচরণ ছিল পুরুষের মতো৷ শাড়ি পরা ওই হিজড়াদের নারী হিসেবে গণ্য করে কারা কর্তৃপক্ষ৷

কিন্তু তাদেরকে কেন্দ্রীয় কারাগারের নারী সেলে রাখা হবে কিনা এ নিয়ে প্রথমে দ্বিধায় পড়েন কতৃপক্ষ৷ পরে তাদেরকে কামিশপুর কারাগারে পাঠিয়ে দেয়া হয়৷ কারা কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে মাঝে মধ্যে দু’ এক জন হিজড়া কারাগারে এলেও তেমন সমস্যা হয়নি৷ কিন্তু এই প্রথম এক সঙ্গে ১৮ জন আসায় বিপাকে পড়তে হয় তাদের৷

শেয়ার করুন