পদত্যাগ করছেন না সংসদ সদস্য গোলাম মাওলা রনি

0
62
Print Friendly, PDF & Email

সারাদিন নাটক করার পর অবশেষে পদত্যাগ না করার ঘোষনা দিলেন গোলাম মাওলা রনি। মঙ্গলবার বিকেলে জাতীয় সংসদের মিডিয়া সেন্টারে তিনি সাংবাদিকদের এ কথা জানান।  পদত্যাগ করা নিয়ে দ্বিধাদ্বন্দ্বে ছিলেন জানিয়ে রনি বলেন, “কখনো মনে হয়েছে পদত্যাগ করি, কখনো মনে হয়েছে করব না।  তাই পদত্যাগ করতে পারি বলে সকালে ফেসবুকে একটা স্ট্যাটাস দিয়েছি। কিন্তু আমি মাননীয় স্পিকার ও দলের জ্যেষ্ঠ নেতাদের সঙ্গে আলাপ-আলোচনা করেছি। এখন আমি পদত্যাগ করব না বলে সিদ্ধান্ত নিয়েছি।”

পটুয়াখালী-৩ আসনের সাংসদ আরও বলেন, “পদত্যাগের সিদ্ধান্তটি ছিল সম্পূর্ণ আমার ব্যক্তিগত। আমার নির্বাচনী এলাকার জনগণ এবং প্রধানমন্ত্রীর সাথে কথা বলেই এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেব।

“তবে দল যদি বিব্রত হয় তাহলে এখনই আমি পদত্যাগ করব।”

এর দুই ঘণ্টা আগে ফেইসবুকে প্রকাশিত ইংরেজি স্ট্যাটাসে রনি বলেন, ” আমি সম্ভবত পদত্যাগ করতে যাচ্ছি। আমি অনুভব করি সাধারণ জনগণ হয়ে আমার এই ষড়যন্ত্র মোকাবেলা করা উচিত। আমাদের গণমাধ্যম দলের কাছে আমার সংসদ সদস্য পদকে কলঙ্কিত করার চেষ্টা করেছে। ইনশাল্লাহ আমি প্রমাণ করব ওই ভিডিও ফুটেজের পেছনের কারণ। মিডিয়া ব্যক্তিত্বদের আমন্ত্রণ জানাবো বিরোধী পক্ষ ও আমার মধ্যে সমান সুযোগ তৈরি করার। “

উল্লেখ্য, শনিবার দুপুরে  ইন্ডিপেন্ডেন্ট টেলিভিশনের প্রতিবেদক ও ক্যামেরাপার্সনকে পেটানোর ঘটনায় গণমাধ্যমে সমালোচনার মুখে পড়েন গোলাম মাওলা রনি। এ ঘটনার জের ধরে গোলাম মাওলা রনির বিরুদ্ধে শাহবাগ থানায় মামলা করে টিভি কর্তৃপক্ষ। ইন্ডিপেন্ডেন্ট টেলিভিশনের সহকারী ব্যবস্থাপক ইউনুছ আলী শনিবার বিকেলে রনিসহ অজ্ঞাত পরিচয় ২০ থেকে ২৫ জনকে আসামি করে মামলাটি দায়ের করেন।

এরপর হত্যাচেষ্টা, ভাঙচুর ও মারধরের অভিযোগে শনিবার দিনগত রাত সাড়ে আটটায় শাহবাগ থানায় গোলাম মাওলা রনিও বাদী হয়ে মামলা করেন।এ মামলায় গোলাম মাওলা রনি রোববার বিচারিক আদালত থেকে মুচলেকায় জামিন পান।

মঙ্গলবার রনির দায়ের করা মামলায় তিন মাসের আগাম জামিন পেয়েছেন ইন্ডিপেন্ডেন্টের দুই সাংবাদিকও। ওই দুই সাংবাদিক আদালতে হাজির হয়ে জামিন আবেদন করলে বিচারপতি সালমা মাসুদ চৌধুরী ও বিচারপতি মো. জাহাঙ্গীর হোসেনের হাইকোর্ট বেঞ্চ এ জামিন মঞ্জুর করেন।

শেয়ার করুন