নাটোরের সদর উপজেলায় নারদ নদের ওপর দত্তপাড়া সেতুর একটি অংশ ভেঙে পড়ায় নাটোর-ঢাকা মহাসড়কে যান চলাচল বন্ধ হয়ে গেছে। এতে আজ মঙ্গলবার ভোর থেকে সেতুর উভয় পাশে প্রায় ১০ কিলোমিটারজুড়ে যানজটের সৃষ্টি হয়েছে। দুর্ভোগ পোহাচ্ছে যাত্রীরা। হাইওয়ে পুলিশ, সওজ ও

0
59
Print Friendly, PDF & Email

নাটোরের সদর উপজেলায় নারদ নদের ওপর দত্তপাড়া সেতুর একটি অংশ ভেঙে পড়ায় নাটোর-ঢাকা মহাসড়কে যান চলাচল বন্ধ হয়ে গেছে। এতে আজ মঙ্গলবার ভোর থেকে সেতুর উভয় পাশে প্রায় ১০ কিলোমিটারজুড়ে যানজটের সৃষ্টি হয়েছে। দুর্ভোগ পোহাচ্ছে যাত্রীরা।
হাইওয়ে পুলিশ, সওজ ও প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, গতকাল ভোর রাত তিনটার দিকে নাটোর-ঢাকা মহাসড়কে দত্তপাড়া সেতুটির মাঝখানের একটি অংশ ভেঙে পড়ে। এতে সেতুর উভয় পাশে চাঁপাইনবাবগঞ্জ, রাজশাহী ও নাটোর থেকে ঢাকা ও দক্ষিণাঞ্চলগামী (কুষ্টিয়া, পাবনা, যশোর, খুলনা, বরিশাল) সব যানবাহন আটকা পড়ে। সকাল ছয়টা নাগাদ সেতুর উভয় পাশে প্রায় ১০ কিলোমিটারজুড়ে যানজট ছড়িয়ে পড়ে।
এদিকে সেতুর অংশবিশেষ ভেঙে পড়ার সময় সেতুর ওপর আটকা পড়ে একটি পণ্যবাহী ট্রাক। হাইওয়ে পুলিশ এবং সড়ক ও জনপথ বিভাগের (সওজ) কর্মীরা অনেক চেষ্টা চালিয়ে সকাল নয়টার দিকে ট্রাকটি সরাতে সমর্থ হন। এরপর সেতুর পশ্চিম অংশ দিয়ে অটোরিকশা ও রিকশা চলাচল শুরু হয়। তবে দুর্ঘটনার আশঙ্কায় সওজ কর্তৃপক্ষ বাঁশ দিয়ে সেতুটি বন্ধ করে দিয়েছে। সকাল সাড়ে নয়টার দিকে সেতুর ক্ষতিগ্রস্ত অংশে মেরামতকাজ শুরু হয়।
প্রত্যক্ষদর্শী দত্তপাড়া মোড়ের পান ব্যবসায়ী আমজাদ হোসেন বলেন, ‘ভোরে একটি মালবাহী ট্রাকসহ সেতুটি ডেবে যায়। পরে আস্তে আস্তে সেতুর কিছু অংশ ধসে পড়ে। তখন আমরা উভয় পাশের গাড়ি থামিয়ে দিই।’
বনপাড়া হাইওয়ে পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মাসুদ রানা বলেন, ‘দুর্ঘটনার পর আমরা ঘটনাস্থলে অবস্থান নিয়েছি। তবে আন্তজেলাসহ বিভিন্ন জেলার যানবাহন বনপাড়া-লালপুর ও হয়বতপুর-দরাপপুর সড়ক হয়ে চলাচল করছে। এতে সকাল সাতটার পর যানজট কমতে শুরু করেছে।’
সড়ক ও জনপথ বিভাগ নাটোর কার্যালয়ের নির্বাহী প্রকৌশলী বাদেশ আলী বলেন, ‘নারদ নদের ওপর বহু আগে নির্মিত সেতুটি কিছুদিন আগে সংস্কার করা হয়েছিল। তবে অত্যধিক যানবাহন চলাচল করার কারণে সেতুটির অংশবিশেষ খসে পড়েছে। আমরা বিকল্প ব্যবস্থায় যানবাহন চলাচল স্বাভাবিক আপ্রাণ চেষ্টা চালাচ্ছি।’

শেয়ার করুন