আলোচনায় আসুন, নইলে নিজেরাই করুন: খালেদা

0
55
Print Friendly, PDF & Email

নির্দলীয় সরকার নিয়ে সংলাপে বসার আহ্বান জানিয়ে খালেদা জিয়া বলেছেন, আলোচনায় বসতে না চাইলে সরকারকেই সংবিধান সংশোধনের মাধ্যমে এই ব্যবস্থা পুনর্বহাল করতে হবে।

রোববার বিকালে সংসদে পার্লামেন্ট মেম্বারস ক্লাবের এলডি ভবন প্রাঙ্গণে মহানগর বিএনপির ইফতার মাহফিলে তিনি এ আহ্বান জানান।

বিএনপি চেয়ারপার্সন বলেন, “আমরা দেশে শান্তি  ও সুষ্ঠু নির্বাচন চাই। আমরা এখনো দাবি করব নির্দলীয় সরকারের বিষয়ে আলোচনায় বসুন। আলোচনা না করতে চাইলে আপনারা নিজেরাই সংবিধানে ওই ব্যবস্থা পুনর্বহাল করুন।”

ইফতার আয়োজনে মহানগরের ১০০টি ওয়ার্ডের নেতা-কর্মী অংশ নেন।

খালেদা জিয়া অভিযোগ করেন, “বর্তমান সরকারের অধীনে সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন সম্ভব নয়। প্র্রশাসনসহ কোনো প্রতিষ্ঠান স্বাধীনভাবে কাজ করতে পারছে না।”

দাবি না মানলে বর্তমান সরকারকে বিদায় করে জনগণের সরকার প্রতিষ্ঠা করা হবে বলে হুঁশিয়ারি দেন খালেদা।

“জনগণেরসরকার প্রতিষ্ঠা হলে দেশে শান্তি ফিরে আসবে। দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতি রোধ হবে। দেশে দুর্নীতি দমন, কর্মসংস্থান ও সুশাসন প্রতিষ্ঠা পাবে।”

নির্দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচন দেয়ার দাবি জানিয়ে তিনি বলেন, “আপনারা যদি মনে করেন গত সাড়ে চার বছরে অনেক উন্নয়ন করেছেন, জনগণের সমস্যার সমাধান দিয়েছেন। তাহলে নির্দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচন দিয়ে জনপ্রিয়তা যাচাই করুন।”

১৯৯৫ সালে তত্ত্বাবধায়ক সরকারের দাবিতে আওয়ামী লীগ ‘জ্বালাও-পোড়াও’ করেছিল বলে উল্লেখ করেন সাবেক প্রধানমন্ত্রী।

“ওই সময়ে আপনারা তত্ত্বাবধায়ক সরকারের দাবিতে অনেক আন্দোলন করেছিলেন। বহু মানুষ হত্যা করে দেশে সম্পদ ধ্বংস করেছিলেন। সেসময়ে জনগণের সম্পদ রক্ষার স্বার্থে আমরা আপনাদের দাবি মেনে নিয়েছিলাম।’’

“এখন আমরা নির্দলীয় সরকারের দাবিতে শান্তিপূর্ণ আন্দোলন করছি। তাতেও আপনারা বাধা দিচ্ছেন। আমাদের সমাবেশে নির্বিচারে গুলিবর্ষণ করছেন, মানুষ হত্যা করছেন।”

দলের সহসভাপতি ও মহানগর আহবায়ক সাদেক হোসেন খোকার সভাপতিত্বে এই ইফতারপুর্ব আলোচনায় সংক্ষিপ্ত বক্তব্য দলের ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, মহানগর সদস্য সচিব আবদুস সালাম, যুগ্ম আহবায়ক এস এ খালেক, কাজী আবুল বাশার, এম এ কাইয়ুম প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।

শেয়ার করুন