অপপ্রচারের শিকার: দীপু মনি

0
56
Print Friendly, PDF & Email

বিদেশ সফর নিয়ে সংবাদ মাধ্যমের প্রতিবেদনকে ‘অপপ্রচার’ বলে এর বিরুদ্ধে পদক্ষেপ নেয়ার হুঁশিয়ারি দিয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী দীপু মনি।

রোববার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি গত সাড়ে চার বছরের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের বিভিন্ন সফলতার দিকও তুলে ধরেন।

দীপু মনি বলেন, তিনি এ পর্যন্ত ১১৪ বার বিদেশ সফর করেছেন। এর মধ্যে রাষ্ট্রপতির সঙ্গে দুটি সফরসহ ৩৬টি ভিভিআইপি সফর। দ্বি-পাক্ষিক বৈঠকের জন্য সফর ৬২টি।

“ওই পত্রিকাটি বলেছে, দ্বি-পাক্ষিক বৈঠকের কারণে আমি সফর করেছি মাত্র ১৭ বার। প্রকৃতপক্ষে  দ্বি-পাক্ষিক বৈঠকের জন্য আমার বিদেশ সফর ছিল ৬২টি।”

“ওই পত্রিকাটি আরো বলেছে, গত ৫৪ মাসে আমি ১৮৭ বার বিদেশ সফর করে ৬০০ দিন দেশের বাইরে অবস্থান করেছি। প্রকৃতপক্ষে আমি এ পর্যন্ত ১১৪ বার বিদেশ সফর করেছি। এজন্য ট্রাভেল ও সফর মিলিয়ে সময় লেগেছে ৫১৭ দিন।”

প্রতিবেদনের তথ্য সংশ্লিষ্ট প্রতিবেদক ও সম্পাদকের ‘গণিত বিভ্রাট’ বলেও মন্তব্য করেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী।

ওই প্রতিবেদন অসত্য, বানোয়াট, ভিত্তিহীন ও উদ্দেশ্যপ্রণোদিত দাবি করে তিনি বলেন, পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে যে প্রতিবেদন পাঠানো হয়েছিল, তা পত্রিকাটিতে যথাযথভাবে ছাপানো হয়নি।

নাগরিক হিসেবে নিজের অধিকার প্রতিষ্ঠার জন্য পত্রিকাটির বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা নেবেন বলেও জানান পররাষ্ট্রমন্ত্রী।

তিনি বলেন, “একটি দেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী তার বিদেশ সফরের মাধ্যমেই বহির্বিশ্বে আস্থা ও বিশ্বাসের সম্পর্ক গড়ে তোলেন। আমাকে আমার কাজ করতে দিতে হবে। অন্যান্য যে কোনো সরকারের তুলনায় বর্তমান সরকারের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সফলতা অনেক বেশি।”

দীপু মনি বলেন,  “আমরা রাজনীতির মানুষ। এখন সরকারে আছি। সরকারের যেকোনো মন্ত্রীর সমালোচনা আপনারা করতে পারেন। তবে সেটি হতে হবে বস্তুনিষ্ঠ, তথ্যনির্ভর। এভাবে ভুল তথ্য দিয়ে উদ্দেশ্যপ্রণোদিত প্রতিবেদন তৈরি করা দুঃখজনক।

“এটা যে কোনো মন্ত্রীর কাজে বাধা দেওয়া, তাকে হতাশাগ্রস্ত করে তোলা। এ ধরনের প্রতিবেদন সৎ রাজনীতির রাস্তা বন্ধ করবে।”

রাজনীতিতে সততা রক্ষার ‘স্বার্থে’ গণমাধ্যমের সচেতনতা প্রত্যাশা করেছেন তিনি।

শেয়ার করুন