পোশাক শ্রমিকদের বেতন ৬ অগাস্টের মধ্যে

0
69
Print Friendly, PDF & Email

ঈদ সামনে রেখে আগামী ৬ অগাস্টের মধ্যে পোশাক শ্রমিকদের বেতন-ভাতা পরিশোধ করা হবে বলে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মহীউদ্দীন খান আলমগীর।

শিল্পাঞ্চল ও অন্যান্য এলাকার আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ে রোববার স্বরাস্ট্র মন্ত্রণালয়ে এক সভা শেষে মন্ত্রী এ কথা  জানান।

তিনি সাংবাদিকদের বলনে, “সাধারণত শ্রমিকদের বেতন-ভাতা ও বোনাস ১ থেকে ৫/৬ তারিখের মধ্যে পরিশোধ করা হয়। ঈদের আগে সময়মতো বেতন-বোনাস দিতে ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলো প্রয়োজনে সহযোগিতা দেবে।”

মন্ত্রী জানান, ঈদের সময় কোনো পোশাক কারখানায় বিশৃঙ্খলা হলে দ্রুত তা সমাধানের জন্য বিজিএমইএ কার্যালয়ে একটি ‘মনিটরিং সেল’ খোলা হয়েছে। ওই সেলে মন্ত্রণালয়ের প্রতিনিধিরাও থাকবেন।

‘সমস্যাগ্রস্ত’ হিসাবে চিহ্নিত পোশাক কারখানাগুলোতে বেতন ভাতার সমস্যা হলে কি পদক্ষেপ নেয়া হবে জানতে চাইলে মন্ত্রী বলেন, তেমন কোনো পরিস্থিতির আশঙ্কা তিনি দেখছেন না।

“শ্রমিকদের বেতন-ভাতা দেয়া হয় মূলত গার্মেন্ট শিল্পের আয় থেকে। বিদেশ থেকে তাদের অর্থ আসার ক্ষেত্রে যাতে কোনো বাধার সৃষ্টি না হয় এবং পণ্য রপ্তানির ক্ষেত্রে তাদের কাগজপত্র যাতে ব্যাংক গ্রহণ করে সে ব্যবস্থা আমরা নিয়েছি।”

ব্যাংক বন্ধ থাকলেও বেতন দিতে সমস্যা হবে না বলেও উল্লেখ করেন মহীউদ্দীন খান আলমগীর।

ঈদের আগে বকেয়া বেতন ও বোনাস দেয়া নিয়ে প্রায় প্রতিবছরই আশুলিয়া, গাজীপুর, ঢাকাসহ বিভিন্ন স্থানে শ্রমিক বিক্ষোভের ঘটনা ঘটে। ফলে প্রতি ঈদের আগেই স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে এ বিষয়ে বিশেষ নজর দিতে হয়।

বাংলাদেশে প্রায় ২০ বিলিয়ন ডলারের তৈরি পোশাক শিল্পে ৩৬ লাখের বেশি শ্রমিক জড়িত, যাদের অধিকাংশই নারী। বাংলাদেশ বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম পোশাক রপ্তানিকারক দেশ হলেও অনেক কারখানায় সরকার নির্ধারিত মজুরি কাঠামোই ঠিকমতো অনুসরণ করা হয় না বলেও অভিযোগ রয়েছে।

কারখানার নিরাপদ কর্মপরিবেশ ও শ্রমিক অধিকার নিশ্চিত না করার অভিযোগ তুলে যুক্তরাষ্ট্র সম্প্রতি বাংলাদেশি পণ্যে জিএসপি সুবিধা স্থগিত করে। তবে বাংলাদেশের তৈরি পোশাক এই সুবিধা পেত না।

শেয়ার করুন