বিএনএফ নিবন্ধন পেলে ইসির বিরুদ্ধে আন্দোলনে যাবে বিএনপি

0
93
Print Friendly, PDF & Email

জনগণকে ধোঁকা দিতে রাষ্ট্রীয় ষড়যন্ত্রের অংশ হিসেবে বাংলাদেশ ন্যাশনালিস্ট ফ্রন্ট (বিএনএফ)-এর উদয় হয়েছে বলে দাবি করেছে দেশের প্রধান বিরোধী দল বিএনপি।

বিএনএফ নামের একটি ভূঁইফোড় সংগঠনকে নিবন্ধন দিতে নির্বাচন কমিশন উঠে পড়ে লেগেছে অভিযোগ করে বিএনপির পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, ওই ভূঁইফোড় সংগঠনকে নিবন্ধন দিলে দুর্বার আন্দোলন গড়ে তোলা হবে।

প্রসঙ্গত, সম্প্রতি নির্বাচন কমিশনে বাংলাদেশ ন্যাশনালিস্ট ফ্রন্ট (বিএনএফ) রাজনৈতিক দল হিসেবে নিবন্ধন করতে আবেদন করে। এতে বিএনপির লোগোর আদলে লোগো এবং নির্বাচনী প্রতীক ধানের শীষের পরিবর্তে গমের শীষ উল্লেখ করে। এরই পরিপ্রেক্ষিতে বিএনপি এই সংগঠনটির বিরুদ্ধে লগো এবং প্রতীক নকলের অভিযোগ করেছে।
বিএনএফ প্রসঙ্গে বিএনপির দপ্তরের দায়িত্বে থাকা দলটির যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বিডিপ্রেস ডটনেটকে জানিয়েছেন, একটি ভুইফোঁড় সংগঠন দিয়ে বিএনপিকে ধ্বংস করার ষড়যন্ত্র করছে বর্তমান সরকার।

আর নির্বাচন কমিশন সরকারের সেই অশুভ পরিকল্পনার অংশীদার হলে বিএনপি তত্ত্বাবধায়ক সরকারের আন্দোলনের পাশাপাশি প্রধান নির্বাচন কমিশনারসহ সব কমিশনারের পদত্যাগের দাবিতে দুর্বার আন্দোলন গড়ে তুলবে।

তিনি আরো বলেন, নামগোত্রহীন উচ্ছিষ্ট আগাছাদের দিকে নির্বাচন কমিশন মনোযোগ দিলে কমিশনের সঙ্গে দেশের প্রধান বিরোধী দল বিএনপির আলোচনার সুযোগটুকুও থাকবে না। এটি তাদের জন্য বাড়া ভাতে ছাই- এর মতো অবস্থা হবে।

নির্বাচন কমিশন কর্তৃক বিএনএফকে নিবন্ধন দেয় প্রসঙ্গে বিডিপ্রেস ডটনেটকে রুহুল কবির রিজভী জানান, এই সংগঠনের সঙ্গে একটি গোয়েন্দা সংস্থা জড়িত। এরই মধ্যে বিএনপির জাতীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য এমকে আনোয়ারের নেতৃত্বে একটি প্রতিনিধি দল বিএনএফকে নিবন্ধন না দিতে ইসিকে অনুরোধ করেছেন।

রিজভী আরো জানান, নির্বাচনের ব্যালটে এক সময় জাহাজ প্রতীক ছিল। আওয়ামী লীগের নৗকার সঙ্গে মিল থাকায় আপত্তির মুখে জাহাজ প্রতীক সরিয়ে নেয়া হয়েছে। অথচ বিএনপির লোগো এবং আমাদের দলের প্রতিষ্ঠাতা শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের ছবিসহ নিবন্ধন পেতে চাচ্ছে বিএনএফ। এটি সম্পূর্ণ অবৈধ।

এদিকে বিএনিপর জাতীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য এমকে আনোয়ার মনে করেন, বিএনএফ এর উত্থান হয়েছে বিএনপি ভাঙার ষড়যন্ত্র হিসেবে। সদ্য গঠিত এই দলটি তাদের প্রতিষ্ঠাতা হিসেবে দাবি করেছেন শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানকে। তাদের দলীয় পতাকায়ও রয়েছে বিএনপির সঙ্গে সাদৃশ্য। তারা প্রতীক হিসেবে নিয়েছে গমের শীষ। দলের নামও রেখেছে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী ফ্রন্ট।

এমকে আনোয়ার বিডিপ্রেস ডটনেটকে এ প্রসঙ্গে বলেন, বিএনএফ তাদের পোস্টারে বিএনপির লোগো, শহীদ জিয়ার ছবি ও তার ১৯ দফা ব্যবহার করে বিভ্রান্ত্রি সৃষ্টি করছে। এই বিএনএফ সেই বিএনএফ (শহীদ জিয়া প্রতিষ্ঠিত) নয়। বিএনপিকে ভাঙার জন্য একটি মহল ষড়যন্ত্র করছে। ১/১১ এর সময়ও ষড়যন্ত্রকারীরা বিএনপিকে ভাঙার ব্যর্থ চেষ্টা করেছিলো, এবারো তারা সফল হবে না।

অন্যদিকে বিএনপির সাবেক প্রতিমন্ত্রী অধ্যাপিকা জাহানারা বেগমের নেতৃত্বে নতুন এই দলটি নির্বাচন কমিশনে নিবন্ধনের আবেদন করে ২০১২ সালের অক্টোবরে। আগামী দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে ৪৩টি দল নিবন্ধনের আবেদন করে ইসিতে। এরমধ্যে বিএনএফ ও সাংস্কৃতিক জোট নামে দু’টি দলকে নিবন্ধনের জন্য বাছাই করে মাঠ পর্যায়ে খোঁজ খবর নিয়েছে নির্বাচন কমিশন।

সর্বশেষ প্রধান নির্বাচন কমিশনার কাজী রকিব উদ্দীন আহমদ সাংবাদিকদের বলেছেন, বিএনএফ সম্পর্কে মাঠ পর্যায়ে অনুসন্ধান চলছে। এরপর গণবিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে মতামত নেওয়া হবে। তখন কারো আপত্তি থাকলে বলতে পারবে।

শেয়ার করুন