প্রধানমন্ত্রী জাতিকে মেধাশূন্য করতে চান: এম কে আনোয়ার

0
74
Print Friendly, PDF & Email

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জাতিকে মেধাশূন্য করতে চান বলে অভিযোগ করেছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য এম কে আনোয়ার।

শুক্রবার সকালে জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের নতুন কমিটির সদস্যদের নিয়ে রাজধানীর শেরেবাংলা নগরে দলের প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানের কবরে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে এ অভিযোগ করেন তিনি।

‘কোটা প্রথার বিরুদ্ধে আন্দোলনের নামে যারা ভাঙচুর করছে তাদের ছবি সংগ্রহ করে রাখা হবে। ছবি দেখে পরীক্ষার সময় তাদের শনাক্ত করে ডিসকোয়ালিফাই করা হবে।’

প্রধানমন্ত্রীর এমন বক্তব্যের সমালোচনা করে এমকে আনোয়ার বলেন, ‘সরকারি কর্ম কমিশন (পিএসসি) কাকে চাকরি দেবে আর কাকে দেবে না এটা তাদের বিষয়। যারা চাকরি পাবে তারা মেধা পরিক্ষায় উত্তীর্ণ হয়েই পাবে। কে চাকরি পাবে আর কে পাবে না তা নির্ধারণ করার এখতিয়ার প্রধানমন্ত্রীর নেই। তিনি জাতিকে মেধাশূন্য করতে চান।’

উল্লেখ্য, গত বৃহস্পতিবার বিকেলে গণভবনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, ‘৩৪তম বিসিএস পরীক্ষার্থীদের মধ্যে যারা কোটা বাতিলের দাবিতে আন্দোলন করার সময় ভাঙচুর ও সহিংসতায় অংশ নিয়েছে ভিডিও ফুটেজ দেখে তাদের শনাক্ত করে ভাইভা থেকে বাদ দেয়া হবে।’

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘যারা আন্দোলনের নামে ভাঙচুর করে তারা কীসের মেধাবী? মেধাবীরা এ ধরনের কাজ করতে পারে না।’  যারা ভাঙচুর করেছে তারা কখনোই চাকরি পাবে না বলেও ঘোষণা দেন তিনি।

এম কে আনোয়ার বলেন, ‘আমরা চাই, দেশে মেধাভিত্তিক সমাজ গড়ে উঠুক। বর্তমানে যে কোটা পদ্ধতি রয়েছে তা বৈষম্যমূলক। বিএনপি এর পুনর্বিন্যাস চায়।’

তিনি বলেন, ‘তত্ত্বাবধায়ক ছাড়া দলীয় সরকারের অধীনে কোনো নির্বাচনে বিএনপি অংশ নেবে না। তত্ত্বাবধায়ক ছাড়া কোনো নির্বাচন এদেশে হতে দেয়া হবে না।’

যুদ্ধপরাধীদের বিচার প্রসঙ্গে আনোয়ার বলেন, ‘দলের পক্ষ থেকে আগেই আমাদের অবস্থান জানিয়ে দিয়েছি। বিএনপি যুদ্ধাপরাধীদের বিচারের বিপক্ষে নয়। বিএনপিও যুদ্ধাপরাধীদের বিচার চায় তবে তা আন্তর্জাতিক মানের এবং সুষ্ঠু ও স্বচ্ছ হতে হবে।  রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত বা প্রহসনের বিচার আমরা চাই না।’

এ সময় দলের সাংগঠনিক সম্পাদক ফজলুল হক মিলন, আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক নাজিম উদ্দিন আলম, ছাত্র বিষয়ক সম্পাদক খাইরুল কবির খোকন, ভারপ্রাপ্ত চিফ হুইপ শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানী, সাবেক ছাত্রনেতা আজিজুল বারি হেলাল, আমিরুজ্জামান আলিম, ছাত্রদল সভাপতি আব্দুল কাদের ভূইয়া জুয়েল, সাধারণ সম্পাদক হাবিবুর রশিদ হাবিব ও সাংগঠনিক সম্পাদক রাজিব আহসান প্রমুখ উপস্থিত ‍ছিলেন।

শেয়ার করুন