ডেসটিনির ৪১টি একাউন্ট জব্দের পর এবার ১০টি ব্যাংকে দুদকের হানা

0
103
Print Friendly, PDF & Email

ডেসটিনির বিরুদ্ধে দুদকের করা মামলা তদন্তে এ পর্যন্ত আল-আরাফা ব্যাংক, ডাচ্ বাংলা ব্যাংক, সাউথইস্ট ব্যাংক, হাবিব ব্যাংক, সোনালী ব্যাংক ও এক্সিম ব্যাংকসহ মোট ৪০টি ব্যাংক হিসাব জব্দ করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। সিস করা এ সব একাউন্টে ডেসটিনির ২’শ ৫কোটি টাকা জমা রয়েছে। এইচএসবিসি ব্যাংকে জমা রাখা ৬৭কোটি টাকা দেশের বাইরে পাঠানো হলেও তা ব্যবহার না হওয়ায় ওই অর্থ দুদকের চাপে ফের এইচএসবিসি ব্যাংকে জমা করা হয়। গতকাল বুধবার এফএনএসকে এ সব কথা বলেন, মামলার তদন্ত কর্মকর্তা কমিশনের উপপরিচালক মো. মোজাহার আলী সরদার। তদন্ত টিমের অন্য সদস্যরা বলছেন, আবারও ডেসটিনিরি ১০টি ব্যাংক একাউন্টে হানা দেওয়া হবে। গতকাল ওই সব ব্যাংকের তাািলকা তৈরী করেন কমিশনের উপপরিচালক পর্যায়ের ৪ কর্মকর্তা। তারা জানান, সারা দেশে সরকারী-বেসরকারী ৫২টি ব্যাংক রয়েছে। এ সব ব্যাংকে তথাকথিত এমএলএম কোম্পানি ডেসটিনির মোট ৭৩৮টি ব্যাংক হিসাব আছে।

এ ঘটনায় ডেসটিনির শীর্ষ পর্যায়ের বেশ কয়েকজন প্রতারককে আটক করা সম্ভব হয়েছে, তাদে বেশিরভাগই বর্তমানে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে আছে। গ্রেফতারকৃতরা হলেন, ডেসটিনির ব্যাবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) রফিকুল আমিন, লে. জেনারেল (অব.) এম. হারুন-উর-রশিদ বিপি, মোহাম্মদ হোসেন, গোফরানুল হক, সাইদ-উর-রহমান, মেজবাউদ্দিন স্বপন, সৈয়দ সাজ্জাদ হোসেন, ইরফান আহমেদ সানী, ফারহা হোসেন দিবা, জামসেদ আরা চৌধুরী, ইঞ্জিনিয়ার শেখ তৈয়বুর রহমান, সেলিনা রহমান, নেপাল চন্দ্র বিশ্বাস, মিতু রানী বিশ্বাস, জাকির হোসেন, আজাদ রহমান, আকবর হোসেন সুমন, শিরীন আক্তার, রফিকুল ইসলাম সরকার, মজিবুর রহমান, সুমন আলী খান, সাইদুল ইসলাম খান রুবেল, আবুল কালাম আজাদ ও লে. কর্নেল (অব.) দিদারুল আলম। ডেসটিনি গ্রুপের বিরুদ্ধে কমিশনের দায়ের করা দুই মামলায় এ পর্যন্ত ৬৩১ কোটি ৯০ লাখ টাকার সম্পত্তি জব্দ করা হয়েছে। এছাড়া ১১৬টি গাড়ি ও জব্দের তালিকায় আছে। দুদকের উপ-পরিচালক মো. মোজাহার আলী সরদার ও সহকারী পরিচালক মো. তৌফিকুল ইসলাম বাদী মামলা দু’টি দায়ের করেন।

শেয়ার করুন