তারেক কোকোর মামলায় জবাব দাখিলের সময় বাড়ল

0
87
Print Friendly, PDF & Email

৪৫ কোটি টাকা খেলাপি ঋণের মামলায় বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমান, আরাফাত রহমান কোকোসহ ১২ ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে দায়ের করা মামলায় বিবাদীপক্ষের জবাব দাখিলের সময় বাড়িয়েছেন আদালত।

মঙ্গলবার মামলার জবাব দাখিলের দিন ধার্য ছিল। কিন্তু মামলার ৬ নম্বর বিবাদী গিয়াস উদ্দিন আল মামুনের পক্ষে জবাব দাখিলের জন্য সময়ের আবেদন করা হয়।

শুনানি শেষে ঢাকার প্রথম অর্থঋণ আদালতের বিচারক মোহাম্মদ রবিউজ্জামান আগামী ২০ আগস্ট জবাব দাখিলের জন্য ফের দিন ধার্য করেছেন।

মামলার বিবাদীরা হলেন ড্যান্ডি ডায়িং লিঃ, শামস এস্কান্দার, সাফিন এস্কান্দার, সুমাইয়া এস্কান্দার, তারেক রহমান, গিয়াস উদ্দিন আল মামুন, আরাফাত রহমান, শাহীনা ইয়াসমিন, বেগম নাসরিন আহমেদ, কাজী গালিব আহমেদ, মিসেস শামসুন নাহার ও মাসুদ হাসান।

মামলার ১০ নম্বর বিবাদী মোজাফফর আহমেদ মারা যাওয়ায় তার স্ত্রী শামসুন্নাহার ও ছেলে মাসুদ হাসানকে এ মামলায় বিবাদীভুক্ত করা হয়।

গত বছরের ২ অক্টোবর ঢাকার প্রথম অর্থঋণ আদালতে মামলাটি করেন সোনালী ব্যাংকের স্থানীয় কার্যালয় শাখার সিনিয়র নির্বাহী কর্মকর্তা নজরুল ইসলাম।

৪৫ কোটি ৫৯ লাখ ৩৭ হাজার ২৯৫ টাকা ঋণ খেলাপির অভিযোগে এ মামলাটি দায়ের করা হয়।
 
মামলায় অভিযোগ করা হয়, বিবাদীরা ড্যান্ডি ডাইংয়ের পক্ষে ১৯৯৩ সালের ২৪ ফেব্রুয়ারি সোনালী ব্যাংকে ঋণের জন্য আবেদন করেন।

ওই বছরের ৯ মে সোনালী ব্যাংক বিবাদীদের আবেদনকৃত ঋণ মঞ্জুর করেন।

২০০১ সালের ১৬ অক্টোবর বিবাদীদের আবেদনক্রমে ব্যাংকের পরিচালনা পর্ষদ সুদ মওকুফ করেন। এরপর ঋণ পুন:তফসিলিকরণও করা হয়।

কিন্তু বিবাদীরা ঋণ শোধ না করে বরাবর কালক্ষেপণ করতে থাকেন।

মামলায় আরও অভিযোগ করা হয়, ২০১০ সালের ২৮ ফেব্রুয়ারি ব্যাংকের পক্ষ থেকে ঋণ পরিশোধের জন্য চূড়ান্ত নোটিশ প্রদান করা হলেও বিবাদীরা কোনো ঋণ শোধ করেননি। 

শেয়ার করুন