ইফতার পার্টিতে আ’লীগের যোগ না দেয়া দুঃখজনক : ফখরুল

0
123
Print Friendly, PDF & Email

রাজনীতিবিদদের সম্মানে বিএনপির দেওয়া ইফতারে আওয়ামী লীগের যোগ না দেওয়াকে ‘দুর্ভাগ্যজনক’ বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

শনিবার রাজনীতিকদের সম্মানে বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার দেওয়া ইফতার শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে মির্জা ফখরুল এই মন্তব্য করেন।

খালেদা জিয়ার দেওয়া ইফতারে বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতারা যোগ দেন। আওয়ামী লীগের কোনো প্রতিনিধি তাতে না গেলেও ক্ষমতাসীন জোটের অন্যতম শরিক জাতীয় পার্টির একটি প্রতিনিধিদল ইফতারে অংশ নেয়।

ইফতার শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে মির্জা ফখরুল বলেন, ‘আমরা সব দলকে আমন্ত্রণ জানিয়েছিলাম।’ যাঁরা এসেছেন তাঁদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়ে ফখরুল বলেন, ‘আওয়ামী লীগের আসার কথায় আমরা উত্সাহী ও অনুপ্রাণিত হয়েছিলাম। কিন্তু দুর্ভাগ্য তারা আসেনি।’

জামায়াতের নেতাদের দাওয়াত দেওয়ায় আওয়ামী লীগ আসেনি—সাংবাদিকেরা এ বিষয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করলে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব বলেন, ‘এটা কোনো অজুহাত নয়। তারা (আওয়ামী লীগ) অনেকবার জামায়াতের সঙ্গে বসেছে।’

বিএনপিকে আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে ইফতারে দাওয়াত দেওয়া হলে তা তাঁরা বিবেচনা করবেন বলে তিনি জানান।

বিকল্প ধারার চেয়ারম্যান বদরুদ্দোজা চৌধুরী সাংবাদিকদের বলেন, আওয়ামী লীগ ইফতারে না যাওয়ায় একটি সমঝোতার সুযোগ হারিয়েছে। বিএনপির সঙ্গে জোটে তাঁর দল যাচ্ছে কি না, সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, ‘বৃহত্তর জোট হলে ক্ষতি কোথায়?’

আওয়ামী লীগের যোগ না দেওয়াকে ‘দুঃখজনক’ বলে মন্তব্য করেন জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য কাজী জাফর আহমদ। বিএনপির সঙ্গে জাতীয় পার্টির জোট হচ্ছে কি না, সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, ‘অপেক্ষা করুন।’

বিএনপির আজকের ইফতারে যোগ দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছিল আওয়ামী লীগ। কিন্তু আজ দুপুরে দলটি তাদের সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করে ইফতারে যোগ না দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয়।

বিরোধীদলীয় নেতার আজকের ইফতার অনুষ্ঠানে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও স্থানীয় সরকারমন্ত্রী সৈয়দ আশরাফুল ইসলামের নেতৃত্বে দলের একটি উচ্চপর্যায়ের প্রতিনিধিদলের যোগ দেওয়ার কথা ছিল।
বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার সঙ্গে এই ইফতারে জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য কাজী জাফর আহমদ, মহাসচিব রুহুল আমিন হাওলাদার, বিকল্প ধারা বাংলাদেশের চেয়ারম্যান বদরুদ্দোজা চৌধুরী, এলডিপির চেয়ারম্যান অলী আহমদ, কৃষক-শ্রমিক জনতা লীগের সভাপতি কাদের সিদ্দিকী এবং বিএনপির নেতৃত্বাধীন ১৮ দলীয় জোটের শরিক দলগুলোর নেতারা অংশ নেন।

বিএনপির নেতাদের মধ্যে দলের ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, স্থায়ী কমিটির সদস্য মওদুদ আহমদ, তরিকুল ইসলাম, আর এ গণি, মাহবুবুর রহমান, রফিকুল ইসলাম মিয়া, মির্জা আব্বাস প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

শেয়ার করুন