উত্তাল রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় জাবিতে মহাসড়ক অবরোধ

0
73
Print Friendly, PDF & Email

বিসিএস-এর কোটা পদ্ধতি বাতিলের দাবিতে উত্তাল হয়ে উঠেছে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়। গতকাল শিক্ষার্থীরা রাজশাহী-ঢাকা মহাসড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করেছেন। একই দাবিতে আগামী শনিবার থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের সব ক্লাস পরীক্ষা বর্জনের ঘোষণাও দিয়েছেন তারা।
বেলা সোয়া ১১টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষার্থীরা নির্ধারিত ক্লাস পরীক্ষা বর্জন করে ক্যাম্পাসে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ শুরু করেন। একপর্যায়ে তারা বিশ্ববিদ্যালয়ের মেইন গেটের সামনে অবস্থান নিয়ে রাজশাহী-ঢাকা মহাসড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করতে থাকেন এবং যান চলাচলে বাধা দেন। প্রায় ৩ ঘণ্টাব্যাপী আবরোধে ঢাকা-রাজশাহী মহাসড়কে অন্তত ৫০০ বাস, ট্রাক ও অটোরিকশাসহ বিভিন্ন যানবাহন আটকে পড়ে। গোটা শহর ও আশপাশের এলাকা জুড়ে সৃষ্টি হয় তীব্র যানজটের। এ সময় সেখানে পুলিশ উপস্থিত হলে শিক্ষার্থীদের মধ্যে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। তবে কোনো সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেনি। দুপুর পৌনে ১টার দিকে শিক্ষার্থীরা অবরোধ তুলে নিলে যান চলাচল শুরু হয়। পরে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর তারিকুল হাসান উপস্থিত হয়ে শিক্ষার্থীদের দাবির সঙ্গে একাত্দতা প্রকাশ করে বলেন, ‘আমরা দাবির বিষয়টি সরকারের ঊধর্্বতন মহলকে জানাব। আপনারা বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করবেন না।’ তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার স্বাভাবিক পরিবেশ বজায় রাখতে শিক্ষার্থীদের প্রতি আহ্বান জানান।
জাবি শিক্ষার্থীদের মহাসড়ক অবরোধ : বিসিএস পরীক্ষার ফল প্রকাশ নিয়ে শাহবাগের কোটাবিরোধী আন্দোলনের সমর্থনে উত্তপ্ত হয়ে উঠেছে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়। মেধার মূল্যায়নে কোটামুক্ত ব্যবস্থার দাবিতে গতকাল সকাল ১১টায় ঢাকা-আরিচা মহাসড়ক অবরোধ করে মানববন্ধন করেছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রায় দেড় হাজার শিক্ষার্থী। জানা যায়, ৩৪তম বিসিএস প্রিলিমিনারি পরীক্ষার ফলাফলে ৫৫ ভাগ কোটাভিত্তিতে ফল প্রকাশিত হলে এর প্রতিবাদে বুধবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বঞ্চিত শিক্ষার্থীদের নেতৃত্বে শাহবাগে সকাল এগারটা থেকে রাত ১০টা পর্যন্ত সড়ক অবরোধ করে আন্দোলন শুরু করে শিক্ষার্থীরা। শাহবাগের আন্দোলনকে আরও বেগবান করতে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা ‘জাহাঙ্গীরনগর দিচ্ছে ডাক, কোটা প্রথা নিপাত যাক’ স্লোগান উচ্চারণে গতকাল বেলা ১১টা থেকে প্রায় ১ ঘণ্টা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটকের সামনে ঢাকা আরিচা মহাসড়ক অবরোধ করে রাখে। এসময় সড়কের উভয়পাশে প্রায় ১০ কি.মি যানজটের সৃষ্টি হয়। গতকাল শাহবাগে আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীদের উপর পুলিশী হামলার নিন্দা জানিয়ে এসময় এই আন্দোলনের আহ্বায়ক ইতিহাস বিভাগের মাষ্টার্সের শিক্ষার্থী আবির হায়দার বলেন, আমরা দক্ষ নীতিনির্ধারক সমৃদ্ধ কোটামুক্ত বাংলাদেশ চাই। দাবি না মানা পর্যন্ত এই আন্দোলন অব্যাহত থাকবে। কোটা পদ্ধতি বাতিলের দাবি জানিয়ে আন্দোলনকারী শিক্ষার্থী ও মুক্তিযোদ্ধার সন্তান মোজাফফর হোসেন সেলিম বলেন, মুক্তিযোদ্ধার সন্তান হয়েও আমরা কোটা প্রথার সুযোগ নেব না বরং আমরা মেধার মাধ্যমে যোগ্যতা প্রমাণ করব। সোয়া এগারটায় আন্দোলনের সঙ্গে সংহতি প্রকাশ করেন ইতিহাস বিভাগের অধ্যাপক এটিএম আতিকুর রহমান ও সহযোগী অধ্যাপক গোলাম রব্বানী। এ সময় অধ্যাপক গোলাম রব্বানী ঢাকা-আরিচা মহাসড়ক অবরোধমুক্ত রাখার আহ্বান জানিয়ে বলেন, মুক্তিযোদ্ধাদের অবদান ভুলে যাওয়ার নয়। অবরোধ শেষে শিক্ষার্থীরা ক্যাম্পাসে বিক্ষোভ মিছিল এবং শহীদ মিনারে এক সংক্ষিপ্ত সমাবেশ করে। এ ব্যাপারে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক মুজিবুর রহমান বলেন, শিক্ষার্থীরা মানববন্ধনের কথা বলে ঢাকা-আরিচা মহাসড়ক অবরোধ করলেও পরে তারা তা তুলে নেয়। তবে কোনো বিশৃঙ্খল ঘটনা ঘটে নি। এদিকে অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটকের সামনে বিপুল পরিমাণ পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।
শাবিতেও বিক্ষোভ, সড়ক অবরোধ : বিসিএস-সহ সরকারি চাকরিতে কোটা বাতিলের দাবিতে ক্যাম্পাসে বিক্ষোভ এবং সড়ক অবরোধ করেছে শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। গতকাল দুপুর ১২টা থেকে ১টা পর্যন্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটকে সিলেট-সুনামগঞ্জ সড়ক অবরোধ করে সমাবেশ করে শিক্ষার্থীরা। এ সময় সড়কের উভয় দিকে তীব্র যানজটের সৃষ্টি হয়। সমাবেশে শিক্ষার্থীরা বলেন, ৫৫% কোটা দিয়ে মেধাকে ধ্বংস করা হচ্ছে। কোটা প্রথা চালু রেখে সরকার মেধাবী শিক্ষার্থীদের সঙ্গে প্রহসন করছে বলেও অভিযোগ করেন তারা। এ ছাড়া কোটা বাতিলের দাবিতে শুক্রবার সিলেটের কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে মানববন্ধন করার ঘোষণা দেয় শিক্ষার্থীরা।
চবিতে মানববন্ধন, বিক্ষোভ : ৩৪তম বিসিএস প্রিলিমিনারি পরীক্ষার ফল পুনর্মূল্যায়ন ও কোটা পদ্ধতি বাতিলের দাবিতে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে (চবি) মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিল করেছে সাধারণ শিক্ষার্থী ও বিসিএসে বঞ্চিতরা।

শেয়ার করুন