পদ্মা সেতু প্রকল্পে দুর্নীতি

0
97
Print Friendly, PDF & Email

টরন্টোতে অবস্থিত ওন্টারিও সুপিরিয়র কোর্ট অব জাস্টিস কানাডায় এসএনসি-লাভালিনের দুই কর্মকর্তার বিরুদ্ধে দায়ের করা মামলার প্রাক্-শুনানি বা প্রি-ট্রায়ালের দিন পিছিয়ে দিয়ে আগামী ৯ সেপ্টেম্বর নির্ধারণ করেছে। ১০ জুলাই ছিল মামলাটির চূড়ান্ত শুনানির দ্বিতীয় দিন। বেলা ১১টায় আদালতে বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত মোহাম্মদ ইসমাইলের পক্ষে তাঁর আইনজীবী ক্যাথরিন ওয়েলস এবং ভারতীয় বংশোদ্ভূত কর্মকর্তা রমেশ শাহ নিজে এবং তাঁর আইনজীবী ডেভিড বি কাজিন উপস্থিত ছিলেন। উল্লেখ্য, গত ২৯ মে প্রথম চূড়ান্ত শুনানিতে মোহাম্মদ ইসমাইল উপস্থিত ছিলেন না। ছিলেন না তাঁর আইনজীবীও। এ জন্য ওই দিন আদালত দ্বিতীয় শুনানির দিনক্ষণ ধার্য করেছিলেন। সেদিন আদালত মোহাম্মদ ইসমাইলকে সতর্ক করে দিয়ে বলেছিলেন, যদি ইসমাইল আদালত অবজ্ঞা করে উপস্থিত না হন তাহলে তাঁকে কোর্ট ওয়ারেন্টের মাধ্যমে গ্রেপ্তার করা হবে। মোহাম্মদ ইসমাইলের পক্ষে তাঁর আইনজীবী তাঁর মক্কেলের অনুপস্থিতির কারণ ব্যাখ্যা করলে ক্রাউন প্রসিকিউশন আগামী ৯ সেপ্টেম্বর সকাল পৌনে নয়টায় প্রি-ট্রায়ালের দিনক্ষণ ধার্যের জন্য আবেদন করেন এবং বিচারপতি তাতে অনুমোদন দেন। কানাডার সুপিরিয়র কোর্ট অব জাস্টিসের মামলাজটের কারণে প্রসিকিউশন ও অভিযুক্ত পক্ষের আইনজীবীদের মধ্যে সমন্বয় এবং বোঝাপড়ার ওপরই মামলাটির গতি নির্ধারিত হবে। আগামী ২০১৪ সালের শেষ নাগাদ মামলাটির চূড়ান্ত কার্যক্রম শুরু হতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে। কানাডার আদালতে এমন অনেক দুর্নীতির মামলা চার-পাঁচ বছর ধরে চলছে। করাপশন অব ফরেন পলিসি অ্যাক্টের আওতায় বাংলাদেশের পদ্মা সেতুর দুর্নীতির এ মামলা করা হয়েছিল।

শেয়ার করুন