আমি ন্যায় বিচার পাইনি : লিমন

0
129
Print Friendly, PDF & Email

 রাজাপুর থানায় লিমনের বিরুদ্ধে র‌্যাবের দেয়া অস্ত্র মামলায় সোমবার চার্জ গঠন করা হয়েছে। ঝালকাঠির আদালতে লিমনের উপস্থিতিতে দীর্ঘ সময় রাষ্ট্রপক্ষ ও  লিমনের  পক্ষের আইনজীবীদের শুনানির পর চার্জ গঠন করেন বিশেষ ট্রাইব্যুনাল-২ এর  বিচারক কিরণ শংকর হালদার। চার্জ গঠনের পর  আদালতের কাঠগড়া থেকে বেড়িয়ে এসে লিমন ও তার মা হেনোয়ারা বেগম কান্নায় ভেঙে পড়েন। কান্না জড়িত কণ্ঠে লিমন বলেন, র‌্যাব বিনা  দোষে আমাকে পঙ্গু বানাল। আশা ছিল এখান থেকে বিচারক আমাকে অব্যাহতি দেবেন। কিন্তু র‌্যাবের সাজানো ঘটনার সময় আমার বয়স ছিল ১৬ বছর। এখন আমার বয়স ১৮ বছরের উপরে হয়েছে দেখে বিচারক আমারসহ মামলার সকল আসামির বিরুদ্ধে চার্জ গঠন করেন। আমি এখানে ন্যায় বিচার পাইনি। উচ্চ আদালতে গিয়ে আবেদন করব। 
লিমন আরো বলেন, কয়েক দিন আগে ঢাকায় মানবাধিকার কমিশনের চেয়ারম্যান ড. মিজানুর রহমানের সঙ্গে দেখা করতে গেলে তিনি র‌্যাবের সঙ্গে সমঝোতার কথা বলেন। যা ছিল খুবই দুঃখজনক। বিনা কারণে তার মতো আর যাতে কেউ নির্যাতনের শিকার না হয় সে জন্য দোষী র‌্যাব সদস্যদের বিচার দাবি করেন লিমন। লিমন আক্ষেপ করে বলেন, র‌্যাবের সঙ্গে অনিয়মতান্ত্রিকভাবে কোনো সমঝোতা হবে না, আইনি লড়াই চলবে। রাষ্ট্র পক্ষে অতিরিক্ত পিপি অ্যাডভোকেট এম আলম খান কামাল এবং লিমনের পক্ষে অ্যাডভোকেট নাসির উদ্দিন কবির, আক্কাস সিকদার, মানিক লাল আচার্য ও নাসিমুল হাসান মামলা পরিচালনা করেন। ২০১১ সালের ২৩ মার্চ ঝালকাঠির রাজাপুর উপজেলার সাতুরিয়া গ্রামে র‌্যাবের গুলিতে আহত হয় লিমন। হাসপাতালে পরে তার একটি পা কেটে ফেলা হয়। র‌্যাব ঘটনার দিনই গুলিবিদ্ধ লিমনকে আটক করে রাজাপুর থানায় ২টি মামলা দায়ের করে। একটি অস্ত্র আইনে, অপরটি সরকারি কাজে বাধাদানের অভিযোগে। দুটি মামলাতেই পুলিশ ইতিমধ্যে লিমনের বিরুদ্ধে চার্জশিট দিয়েছে। প্রথম থেকেই র‌্যাবের অভিযোগ মিথ্যা ও ভিত্তিহীন বলে দাবি করছে লিমন এবং তার পরিবার।

শেয়ার করুন