বাংলাদেশি পোশাকের অর্ডার চলে যাচ্ছে ভারতের হাতে

0
59
Print Friendly, PDF & Email

বাংলাদেশি পণ্যের শুল্কমুক্ত প্রবেশাধিকার (জিএসপি) স্থগিত করা হয়েছে এমন ঘোষণার সঙ্গে সঙ্গেই পোশাক শিল্পের শূন্যতা দখলে তৎপর হয়ে উঠেছেন ভারতীয় গার্মেন্টস মালিকরা। এরই মধ্যে তারা অতিরিক্ত একশ’ কোটি ডলারের অর্ডার পেতে যাচ্ছে বলে জানা গেছে। 

শুক্রবার ভারতের টাইমস অব ইন্ডিয়ায় প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে এই ইঙ্গিত দেওয়া হয়। প্রতিবেদনে বলা হয়, বিশ্ববাজারে বাংলাদেশি পোশাকের শূন্যতা পূরণে বাজার দখলের ব্যাপারে আশাবাদী ভারতীয়রা।

গত বছরের নভেম্বরে আশুলিয়ার তাজরীন ফ্যাশনে অগ্নিকাণ্ডে শতাধিক এবং চলতি বছেরের এপ্রিলে সাভারে রানা প্লাজা ধসে সহস্রাধিক শ্রমিক প্রাণ হারান। এই দুটি ঘটনার সূত্র ধরেই বাংলাদেশের কারখানাগুলোতে নিরাপদ কর্মপরিবেশ নেই উল্লেখ করে বৃহস্পতিবার জিএসপি সুবিধা স্থগিত করে যুক্তরাষ্ট্র। একই ধরনের ব্যবস্থা নিতে পারে ইউরোপীয় ইউনিয়নও (ইইউ)।

টাইমস অব ইন্ডিয়ার প্রতিবেদনে বলা হয়, বিশ্ববাজারে বাংলাদেশি পোশাকের শূন্যতা তৈরি হওয়ার ফলে ক্রেতারা এখন নতুন উৎসের সন্ধান করছেন। এরই মধ্যে বিশ্বখ্যাত ব্র্যান্ড ওয়াল্ট ডিজনি বাংলাদেশ থেকে তৈরি পোশাক আমদানি বন্ধ করেছে। যা ভারতের সামনে বিশ্বের সবচেয়ে বড় তৈরি পোশাক রফতানিকারক দেশ হিসেবে নিজেদের মেলে ধরবার সুযোগ এনে দিয়েছে।

 

প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, গত কয়েক বছর ধরে স্বীকৃত আন্তর্জাতিক ক্রেতারা সস্তা শ্রমের জন্য বাংলাদেশে গেছে। যা দেশটিকে এই শিল্পে বিশ্ববাজারে প্রতিযোগিতায় টিকে থাকতে সাহায্য করেছে। এখন সুপার মার্কেট চেইনসহ শীর্ষ ব্র্যান্ডগুলোও নিরাপত্তা ও শ্রমমান ইস্যুসহ রাজনৈতিক সহিংসতার কারণে বাংলাদেশকে বর্জন করতে চাইছে। এক্ষেত্রে তারা ভারতসহ অন্যান্য দেশগুলোকেই পছন্দ করছে।

এ ব্যাপারে কনফেডারেশন অব ইন্ডিয়ান টেক্সটাইল ইন্ডাস্ট্রির জেনারেল সেক্রেটারি ডি কে নায়ার জানান, সাম্প্রতিক ঘটনাচক্রে ভারতের কাছে অর্ডারের পরিমাণ বেড়েছে। এরইমধ্যে কিছু স্থানান্তর হওয়া অর্ডার আমরা পেয়েছি।

ভারতের জয়তি অ্যাপারেল নামে একটি পোশাক কারখানার কর্মকর্তা এইচ কে এল মাগু জানান, ভারত সামনে অতিরিক্ত আরও একশ’ কোটি ডলারের অর্ডার পেতে যাচ্ছে।

শেয়ার করুন