স্পিকারের প্রশংসায় বিএনপি

0
79
Print Friendly, PDF & Email

স্পিকারের কাছ থেকে ‘সব ধরনের সহযোগিতা’ পাচ্ছেন বলেই বিএনপির সদস্যরা এখন নিয়মিত অধিবেশনে আসছেন বলে জানিয়েছেন বিরোধী দলের ভারপ্রাপ্ত প্রধান হুইপ শহিদউদ্দীন চৌধুরী এ্যানি।

বুধবার সংসদ অধিবেশনে স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরীকে তিনি বলেন, “আপনার আন্তরিকতা ও সব ধরনের সহযোগিতা পাচ্ছি। বিরোধী দলও সংসদে রয়েছে। এতে সংসদ গৌরবোজ্জ্বল হয়েছে। এ ধারাবাহিকতা বজায় রাখতে চাই।”

তবে সংসদের চলতি বাজেট আলোচনায় বিরোধী দলকে অন্তত এক তৃতীয়াংশ সময় বরাদ্দ দেয়ার দাবি জানান বিরোধী দলের ভারপ্রাপ্ত চিফ হুইপ।

সংসদ নেতা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাও এ সময় অধিবেশনে ছিলেন।

এ্যানি বলেন, “বাজেটের জন্য আমাদের অর্ধেক সময় না দিলেও অন্তত ১২ ঘণ্টা সময় দেবেন। ২৯ জুন বিরোধী দলীয় নেতা বক্তব্য দেবেন। এর আগে আরো ছয় জন সদস্য বাজেট আলোচনায় অংশ নেবেন।”

বিরোধী দল ইতিবাচক বক্তব্য নিয়ে গণতন্ত্রকে আরো সুসংহত করতে চায় বলেও উল্লেখ করেন তিনি।

জাতীয় সংসদে প্রধান হুইপ আবদুস শহীদ জানান, চলতি বাজেট অধিবেশন আরো দুই দিন সকালে-বিকালে চলবে। শনিবার অর্থবিল (প্রস্তাবিত বাজেট) পাস হবে।

ওই দিন সংসদ নেতা ও বিরোধী দলীয় নেতার বক্তব্যের পর অর্থমন্ত্রী সমাপনী বক্তব্য দেবেন বলে জানান তিনি।

গত ৩ জুন থেকে শুরু হওয়া এ বাজেট অধিবেশন ৩ জুলাই পর্যন্ত চলবে বলে কার্যউপদেষ্টা কমিটির সিদ্ধান্ত হয়।

এ অধিবেশনে ৪০ ঘণ্টা বাজেট আলোচনার কথা রয়েছে জানিয়ে প্রধান হুইপ বলেন, এ সময়ের মধ্যে ৩৫০ সাংসদের প্রত্যেক সদস্য গড়ে ৮ মিনিট করে সময় পান। এর মধ্যে জ্যেষ্ঠ সংসদ সদস্যও রয়েছেন, তাদের একটু বেশি সময় দিতে হয়।

তিনি বলেন, “বিরোধী দলের সদস্যরা বাজেট আলোচনায় ৭ ঘণ্টা ৩২ মিনিট সময় পাবেন। ইতোমধ্যে তারা ৫ ঘণ্টার বেশি সময় বক্তব্য রেখেছেন। সবকিছু বিবেচনা করে সময় দিতে হবে। কোনো অযৌক্তিক দাবি করা যাবে না।”

টানা ৮৩ কার্যদিবস অনুপস্থিতির পর সংসদে ফিরে বিএনপি ১৮তম অধিবেশনের শুরু থেকেই সংসদে রয়েছে।

সংরক্ষিত নারী আসনের কয়েকজন সদস্যের আক্রমণাত্মক বক্তব্যের পর সংসদে উত্তাপও ছড়ায়। সরকারি দলের কয়েকজন সদস্যের আক্রমণাত্মক বক্তব্যে অন্তত নয়বার ওয়াকআউটও করে তারা।

এ পর্যন্ত ১৮টি অধিবেশনে বিরোধী দলীয় নেতা এসেছেন মাত্র নয়দিন।

শেয়ার করুন