মানবাধিকার কমিশনের চেয়ারম্যানের পদত্যাগ দাবি বিএনপির

0
104
Print Friendly, PDF & Email

জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের চেয়ারম্যান মিজানুর রহমানের পদত্যাগ দাবি করেছে প্রধান বিরোধী দল বিএনপি। র‌্যাবের গুলিতে পা হারানো কিশোর লিমনের পরিবারকে মামলা তুলে নিতে মধ্যস্থতার প্রস্তাব দেওয়ায় বিএনপি এই দাবি জানিয়েছে।
দলের ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর আজ বুধবার এক বিবৃতিতে এ দাবি করেন। দলটির অভিযোগ, মধ্যস্থতার প্রস্তাব দিয়ে মানবাধিকার কমিশনের চেয়ারম্যান নিজে চরমভাবে মানবাধিকার লঙ্ঘন করেছেন।
গত রোববার মানবাধিকার কমিশনের চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান পঙ্গু লিমনের মা-বাবাকে ডেকে নিয়ে র্যাবের করা মামলা প্রত্যাহারের স্বার্থে র্যাবের বিরুদ্ধে লিমনের মায়ের করা মামলা প্রত্যাহারের প্রস্তাব দেন।
মধ্যস্থতার এই প্রস্তাবকে ‘অন্যায়, অমানবিক, অবিচারমূলক, মানুষের মৌলিক মানবাধিকার পরিপন্থী এবং নীতিহীনতার ন্যক্কারজনক দৃষ্টান্ত’ হিসেবে অভিহিত করেন মির্জা ফখরুল।
কমিশনের চেয়ারম্যানের এই ভূমিকায় সারা দেশে মানবাধিকার পরিস্থিতির চরম অবনতি ঘটবে এবং আইনশৃঙ্খলা বাহিনী আরও বেপরোয়া হয়ে উঠবে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেন বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব। তাঁর দাবি, দায়ী র‌্যাব সদস্যদের বাঁচানোর জন্যই মানবাধিকার কমিশনের চেয়ারম্যানের এই চেষ্টা।
কমিশনের এই ভূমিকার নিন্দা জানিয়ে ফখরুল অভিযোগ করেন, ‘মানবাধিকারের নামে শুধুই উচ্চ কলরব করে কমিশনের চেয়ারম্যান প্রকারান্তরে সরকারের অপকর্মগুলো আড়াল করার চেষ্টা করছেন।’
কমিশনের চেয়ারম্যানের মধ্যস্থতার প্রস্তাবে ক্ষোভ প্রকাশ করে ফখরুল বলেন, ‘র‌্যাবের গুলিতে লিমন পা হারায়, অথচ লিমনের নামে মিথ্যা মামলা দায়ের করে লিমনের পরিবারকে হুমকি ধমকি দেওয়া হচ্ছে মামলা তুলে নেওয়ার জন্য। তার পরিবারকে সর্বদা ভয়ভীতির পরিবেশের মধ্যে রাখা হয়েছে। কিন্তু এ বিষয়ে কমিশনের চেয়ারম্যান দুঃসহ আতঙ্কের মধ্যে দিনযাপনকারী লিমনের পরিবারের মানবাধিকার রক্ষা ও ন্যায়বিচার নিশ্চিত না করে মধ্যস্থতার প্রস্তাব দিয়ে অন্যায়ের পক্ষাবলম্বন করেছেন।’
মির্জা ফখরুল অভিযোগ করেন, জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের চেয়ারম্যান অর্পিত দায়িত্বের চৌহদ্দির বাইরে গিয়ে সব সময় বক্তব্য বিবৃতি দিয়ে থাকেন। কমিশনের চেয়ারম্যান হিসেবে তিনি প্রতিষ্ঠানের নিরপেক্ষতা উপেক্ষা করে শাসক দলের সুরে সুর মেলান। তত্ত্বাবধায়ক-ব্যবস্থা নিয়ে দেওয়া মিজানুর রহমানের বক্তব্য উল্লেখ করে ফখরুল বলেন, এর মাধ্যমে তিনি প্রমাণ করেছেন, তিনি সরকারি দলের সেবা করার জন্যই কমিশনের চেয়ারম্যান হয়েছেন।

শেয়ার করুন