জন্মলগ্ন থেকেই আওয়ামী লীগ মানুষের জন্য সংগ্রাম করছে

0
72
Print Friendly, PDF & Email

জনগণের ভোটে আওয়ামী লীগ আবারও ক্ষমতায় আসবে বললেন, প্রধানমন্ত্রী এবং আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, যখনই আওয়ামী লীগ ক্ষতায় আসে, তখনই জনগণ কিছু পায়। কারণ আওয়ামী লীগ জনগণের দল। জনগণকে নিয়েই রাজনীতি করে।

রোববার বিকেলে জাতীয় সংসদের বৈঠকের শুরুতেই অনির্ধারিত আলোচনায় আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষ্যে দেয়া বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, “বাঙলা ভাষার ওপর প্রথম যে আঘাত আসে, আওয়ামী লীগই তার প্রতিবাদ করে। এরপর এ দলটিই দেশের স্বাধীনতা এনে দেয়।”

শেখ হাসিনা বলেন, ‘বাংলাদেশ’ শব্দটিও প্রথম উচ্চারণ করেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান।তিনি আরও বলেন, জন্মলগ্ন থেকেই আওয়ামী লীগ মানুষের জন্য সংগ্রাম করছে ভবিষ্যতেই করবে।

আওয়ামী লীগের জন্মদিন ২৩ জুনের সঙ্গে ১৯৫৭ সালের ঐতিহাসিক যোগসূত্র রয়েছে উল্লেখ করে শেখ হাসিনা বলেন, “১৯৫৭ পলাশীর আম্রকাননে বাংলার স্বাধীনতার সূর্য অস্তমিত হয়। আর নতুন করে স্বাধীন করার জন্য ১৯৪৯ সালের এই দিনেই আওয়ামী লীগের  জন্ম হয়”

তিনি বলেন, “পঁচাত্তরের ১৫ আগস্ট বঙ্গবন্ধুকে সপরিবারে হত্যা এবং এরপর ওই বছরের ৩ নভেম্বর কারাগারে জাতীয় চার নেতাকে হত্যার পরে অনেকেই ধারণা করেছিল, আওয়ামী লীগ আর কখনোই বোধ হয় মাথা তুলে দাঁড়াতে পারেব না। কিন্তু আওয়ামী লীগ গণমানুষের সংগঠন। এ কারণেই ২১ বছর পরে  দলটি আবার মাথা তুলে দাঁড়ায়। ক্ষমতায় আসে। অনেক সংগ্রামরে মধ্য দিয়ে জনগণের ক্ষমতা  জনগণের জহাতে ফিরিয়ে দিয়েছি। গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করেছি। সংবিধান সংশোধন করে গণতন্ত্র পুনঃপ্রতিষ্ঠা করা হয়েছে।”

যুদ্ধাপরাধের বিচারের রায় কার্যকর করার মাধ্যমে দেশের মানুষকে কলঙ্কমুক্ত করা হবে বলে প্রধানমন্ত্রী উল্লেখ করেন। তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ যখনই সরকারে এসেছে দেশের মানুষ কিছু পেয়েছে। ভাষার অধিকার পেয়েছে। আওয়ামী লীগের কারণেই ২১ ফেব্রুয়ারি আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা হিসেবে স্বীকৃতি  পেয়েছে। গঙ্গার পানির ন্যায্য হিস্যা আদায় হয়েছে। মিয়ানমারের বিরুদ্ধে সমুদ্র বিজয় হযেছে। আগামীতে ক্ষমতায় এলে ভারতের কাছ থেকেও সমুদ্র সীমা অর্জন করা সম্ভব হবে বলে প্রধানমন্ত্রী আশা প্রকাশ করেন।

শেয়ার করুন